• ঢাকা রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
logo

‘ক্রীড়ামন্ত্রী হস্তক্ষেপ না করলে হকির মৃত্যু ঘটবে’

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২১ এপ্রিল ২০২৪, ১৭:২৭
হকি
ছবি- সংগৃহীত

হকি প্রিমিয়ার লিগের চলতি আসরের অঘোষিত ফাইনালে গত শুক্রবার আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে ম্যাচ শেষ হওয়ার আগেই মাঠ ছাড়ে মোহামেডানের খেলোয়াড়রা। এতে আবাহনীকে জয়ী ঘোষণা করে আম্পায়ার। কিন্তু এই ম্যাচের ফলাফল বাতিল এবং আম্পায়ারের শাস্তিসহ হকি ফেডারেশন পুনঃগঠনের জন্য যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপনের কাছে দাবি জানিয়েছে মোহামেডান।

রোববার (২১ এপ্রিল) দুপুরে ক্লাব প্রাঙ্গনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে ঐতিহ্যবাহী ক্লাব মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। এ সময় ক্লাবের ডাইরেক্টর ইনচার্জ কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, আমাদের বিপক্ষে হকি লিগ জুড়ে যে অন্যায়-অবিচার হয়েছে। এজন্য আমরা ফেডারেশনকে নানা সময়ে চিঠি দিয়েছি, সেই চিঠির প্রতিকার পাইনি। তাই এখন বাধ্য হয়ে মাননীয় ক্রীড়া মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি সুবিচারের দাবিতে।

মোহামেডানের সাবেক পরিচালক ও কিংবদন্তী হকি এবং ফুটবলার প্রতাপ শঙ্কর হাজরা বলেন, এই লিগে অনেক ঘটনাই ঘটেছে। একটি লিগে তিনটি নিয়ম কিভাবে হয়, সেই জবাব চাই ফেডারেশনের কাছে। এক ম্যাচে ( আজাদ-বাংলাদেশ স্পোর্টিং ) এক কোয়ার্টার না খেলিয়ে পয়েন্ট ভাগাভাগি, আরেক ম্যাচ পরের দিন কয়েক মিনিট খেলা হলো আর আবাহনী-মোহামেডান খেলা শেষের আগেই ফলাফল ঘোষণা করা হলো।

গত দুই দশকে মোহামেডানের ফুটবল ও ক্রিকেটে সাফল্য অনেকটাই কম সেই তুলনায় সফল হকিতে। ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি সফল ডিসিপ্লিন থেকে নিজেদের সরে আসার পরিকল্পনা করছে।

প্রতাপ শঙ্কর হাজরা আরও বলেন, আম্পায়ারিং ও ফেডারেশন নিরপেক্ষ না হলে সেই লিগে অংশগ্রহণের যৌক্তিকতা নেই। মন্ত্রী যদি বিষয়টি সুষ্ঠ তদন্ত বা সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ না করে তখন আমাদের পরিচালনা পর্ষদ হকি না খেলার সিদ্ধান্ত নিতে পারে। হকিতে অংশগ্রহণ না করার পাশাপাশি হকি ফেডারেশনের কমিটিতে মোহামেডানের স্থায়ী সদস্যরাও পদত্যাগ করতে পারেন।

‘ক্রীড়ামন্ত্রী এবং মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। নিরপেক্ষ ব্যক্তির মাধ্যমে ফেডারেশন পরিচালনা করা উচিত। না হলে হকির সামনে মৃত্যু ঘটবে।’

তবে নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও মোহামেডান ৩-২ গোলে এগিয়ে ছিল। ম্যাচের বাকি ছিল মাত্র ১৭ মিনিট। সেই মুহূর্তে মোহামেডানের খেলোয়াড়রা কেন আবাহনী খেলোয়াড়দের ফাঁদে পড়ে বিবাদে জড়াল এবং টেন্ট থেকে পুরো দল গিয়ে কেন মারামারি করল?

এই প্রশ্নের জবাবে মোহামেডানের ম্যানেজার আরিফুল হক প্রিন্স বলেন, আবাহনীর খেলোয়াড় মিমো আগে আক্রমণ করেছে। সেই আক্রমণের প্রেক্ষিতে আমাদের খেলোয়াড়রা রক্তাক্ত হয়েছে। অথচ আম্পায়ার আমাদের বেশি কার্ড দিয়েছে। হকিতে উত্তেজিত মুহূর্তে খেলোয়াড় জড়ায় সেটি অনেক দিন থেকেই নতুন কিছু নয়।

মন্তব্য করুন

daraz
  • খেলা এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
আখাউড়ায় পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু
বজ্রপাতে অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু
পশুর হাটে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু
স্বামীর মৃত্যুর ৭ ঘণ্টা পর মারা গেলেন স্ত্রীও