logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০ চৈত্র ১৪২৭

নিউজিল্যান্ডে লড়তে হবে বাতাসের সঙ্গেও

ছবি- বিসিবি

টানা আট দিন ঘর বন্দী থাকার পর বৃহস্পতিবার মুক্ত বাতাসে লম্বা সময় শ্বাস নিতে পেরেছে টাইগাররা। নিউজিল্যান্ডের হোটেলে খেয়ে-ঘুমিয়ে দিন কাটা শেষে আজ থেকে শুরু হয়েছে অনুশীলন।

আগামী ২০ তারিখ ডানেডিনে ৩ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচ শুরু হবার আগে ১৫ দিন পাওয়া যাবে অনুশীলনের জন্য। এই সময়ের ভেতরই প্রস্তুত হতে হবে কিউইদের মোকাবিলা করার জন্য।

ওদের মাটিতে এখন পর্যন্ত একটা ম্যাচও জিততে পারেনি বাংলাদেশ। কিউইদের বিপক্ষে ওদের মাটিতে এখন পর্যন্ত ৯টি টেস্ট, ১৩টি ওয়ানডে ও ৪টি টি-টোয়েন্টি খেলেছে টাইগাররা।

এবার আর খালি হাতে ফিরতে চায় না টাইগাররা, জানালেন দলের তরুণ অল-রাউন্ডার সাইফউদ্দিন।

‘নিউজিল্যান্ডে আমাদের প্রাপ্তির খাতা একেবারেই শূন্য। এবার আমাদের চেষ্টা থাকবে এবারের সিরিজ থেকে কিছু যেন নিয়ে যেতে পারি।’

টেস্ট, টি-টোয়েন্টি যেমনই হোক, ওয়ানডে ফরম্যাটে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে গত কয়েক বছরে। তামিম ইকবালের দল বুঝতে শিখেছে, নিজেদের দিনে ভালো খেলতে পারলে যেকোনো দলকেই হারানো সম্ভব।

‘প্রত্যাশা অবশ্যই থাকবে। কারণ, ওয়ানডেতে আমরা অনেক ভালো দল। আমরা সবাই যদি নিজেদের সেরাটা খেলতে পারি, দিনটা যদি আমাদের হয়, অবশ্যই ফল আমাদের পক্ষে কথা বলবে।’

প্রত্যাশা তো আছেই কিউইদের হারানোর কিন্তু, বড় বাধা ওদের আবহাওয়া। বাতাস এতটাই বেশি যে খাবি খেতে হচ্ছে টাইগারদের।

‘আজ অনুশীলনে আমরা ফিল্ডিংটা নিয়ে সবচেয়ে বেশি কাজ করেছি। বিশেষ করে শর্ট ক্যাচ এবং হাই ক্যাচ নিয়ে কাজ করেছি। কারণ, এখানে আবহাওয়া এবং বাতাসের একটা ব্যাপার থাকে। সেটার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্যই ক্যাচিং অনুশীলন করা। এরপর আমরা ছোট ছোট সেশনে ব্যাটিং আর বোলিং করেছি।’

টানা সাত দিন ঘর বন্দী থাকার পর অনুশীলনে নেমেছে বাংলাদেশ দল। সেটিও আবার কয়েকটি গ্রুপে। কোয়ারেন্টিনের এই কঠিন নিয়ম মেনে নিতেও হচ্ছে সাইফউদ্দিনদের।

‘সাত দিন হোম কোয়ারেন্টিন করার পর আজ ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে অনুশীলন করেছি। এভাবে কোয়ারেন্টিন মেনে নিউজিল্যান্ডে আসার অভিজ্ঞতা আমাদের প্রথম। তবে সবকিছু ভালোই ছিল। একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে আমরা সব সময়ই সব ধরনের পরিস্থিতিতে নিজেদের মানিয়ে নিতে চেষ্টা করি।’

এমআর/

RTV Drama
RTVPLUS