• ঢাকা সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১
logo

রাতে নিরাপদ থাকার দাবি রিকশাচালকদের (ভিডিও)

তাইমুন ইসলাম রায়হান

  ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ২২:৫৮

থাকার জায়গা নেই। ভাড়া বেশি হওয়ায় মেসে থাকাও কষ্টসাধ্য। তাই কেউ রিকশার ওপর, কেউ আবার নিজের রিকশাটি আগলে ধরে পাশে শুয়ে ঘুমাচ্ছেন। সারাদিনের কঠোর পরিশ্রম শেষে ক্লান্ত দেহটি যখন নরম বিছানার খোঁজ করেন, তখন রিকশাচালকদের একমাত্র ভরসা নিজের রিকশাটি। এভাবেই রাত কাটছে রাজধানীতে শত শত রিকশাচালকের। ফলে তারা প্রায়ই ভুগছেন নানা শারীরিক জটিলতায়। তাই রাতে থাকার জন্য একটি নিরাপদ আবাস তৈরি করে দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন রিকশাচালকরা।

প্রতিদিন গভীর রাতে রাজধানীর সেগুনবাগিচা, মিন্টো রোড, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন এলাকায় এমন শতশত রিকশাচালকের দেখা মেলে। ঢাকায় কোনো বাসস্থান না থাকায় ২৪ ঘণ্টাই তাদের থাকতে হয় রিকশার কাছেই।

সেগুনবাগিচার একজন রিকশাচালক জানান, প্রায় সারাদিনই রিকশার ওপর থাকি। রাতে ও দুপুরে রিকশার ওপরই ঘুমায়। দিনে ঝড়-বৃষ্টি হলে কোনো দোকানে আশ্রয় নিই, আর রাতে ঝড়-বৃষ্টি হলে রিকশাতে পর্দা দিয়ে ঘুমায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকার এক রিকশাচালক জানান, গত ১৫ বছর ধরে এভাবে রিকশার ওপরই ঘুমাচ্ছেন। প্রথমে একটি বাসাভাড়া নিয়ে ছিলাম, ভাড়া দেওয়ার পর আর পরিবারের জন্য বেশি টাকা পাঠাতে পারতাম না। এ জন্য সেটি ছেড়ে দিয়েছি।

রিকশাচালকরা জানান, বাসাভাড়া বেশি হওয়ায় উপায় না পেয়ে এমন কষ্টের পথ বেছে নিতে হয়েছে তাদের। দিনরাত এমন কঠোর পরিশ্রম করে উপার্জিত অর্থ দিয়েই হাসি ফোটে তাদের পরিবারের মুখে। তাইতো সকল কষ্ট ভুলে গিয়ে এভাবে এক যুগেরও বেশি সময় পার করে দিয়েছেন, তোহবার হোসেন ও আব্দুল বারেকসহ অনেকে।

রাতে থাকার জন্য একটি নিরাপদ আবাস তৈরির দাবি জানিয়েছেন রিকশাচালকরা।

মন্তব্য করুন

daraz
  • বিশেষ প্রতিবেদন এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
রাজধানীতে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে গার্মেন্টস কর্মকর্তা নিহত
শাহজাদপুরে এটিএম বুথের নিরাপত্তাকর্মীকে হত্যা : প্রধান আসামি গ্রেপ্তার
চলমান তাপদাহ প্রসঙ্গে যা জানালেন পরিবেশমন্ত্রী
বিমানবন্দরে প্রকৌশলী নিহত : বাসচালকের দোষ স্বীকার
X
Fresh