logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

আহতদের হাসপাতালে দেখতে গিয়ে তোপের মুখে শোভন-রাব্বানী

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৪ মে ২০১৯, ১৫:১৭
সোমবার বিকেলে ঘোষণা করা হয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি। এরপরই সন্ধ্যায় পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভে হামলা করে পদপ্রাপ্তদের একাংশ। এতে আহত হয় অন্তত দশজন। যাদের বেশিরভাগই ছাত্রী হলগুলোর নেত্রীর। আহতদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত পৌনে ১১টার দিকে তাদের দেখতে যান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। 

এ সময় উভয় পক্ষের নেতা-কর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তাঁরা বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। পাল্টাপাল্টি স্লোগান দিতে থাকেন। তোপের মুখে কেন্দ্রীয় এই দুই নেতা সেখান থেকে ফিরে যান।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হামলায় আহত ব্যক্তিদের দেখতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী আসলে আহত ব্যক্তিদের সঙ্গে থাকা পদবঞ্চিত শতাধিক নেতা-কর্মী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বাধা দেন ৷ তাঁদের গ্রহণ করতে আপত্তি জানান। উদ্ভূত অবস্থায় উভয় পক্ষের নেতা-কর্মীরা পাল্টাপাল্টি স্লোগান দেন ৷অন্যদিকে, শোভন ও রাব্বানীর সমর্থকেরা পাল্টা স্লোগান দেন। তারা বিদ্রোহীদের বহিষ্কারের হুমকি ধামকিও দেন বলে অভিযোগ করেন পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা।  

এ সময় রোকেয়া হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক লিপি আক্তার শোভন-রাব্বানীর উদ্দেশে বলেন, রাজাকারপুত্র, বিবাহিত, অছাত্রদের কেন কমিটিতে রেখেছেন? আমাদের মতো ত্যাগীদের কেন মূল্যায়ন করেননি? জবাবে রাব্বানী বলেন, সামনে তোমাদের মূল্যায়ন করা হবে। ছাত্রলীগের বিগত কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাইফ বাবু শোভন-রাব্বানীর উদ্দেশে বলেন, ত্যাগী নেতা-কর্মীদের মারধর করে এখন আপনারা সিমপ্যাথি নেওয়ার জন্য এসেছেন। কোনোভাবেই এই নাটক করতে দেওয়া হবে না। পদবঞ্চিতদের একের পর এক প্রশ্নে তোপে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ফটক থেকে ফিরে যান ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

 

এসজে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়