• ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০১৯, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

মানিকগঞ্জ-১

ধানের শীষ প্রতীক ডাবলুর, জিন্নাহ কারাগারে

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ
|  ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:০৩ | আপডেট : ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৩:২৪
অবশেষে মানিকগঞ্জ-১ আসনে ধানের শীষ প্রতীকের কাণ্ডারি হলেন প্রয়াত বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এবং জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট খোন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলু।

ওই আসনে বিএনপি মনোনীত অন্য প্রার্থীরা হলেন জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এ কবীর জিন্নাহর হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিল চেম্বার আদালত খারিজ করলে ডাবলুর মনোনয়ন বৈধ হয়। 

কৌশলগত কারণে এই আসনে বিএনপির পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে মনোনয়ন দেয়া হয় তিনজনকে। অন্য প্রার্থীরা হলেন দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক তোজাম্মেল হক তোজা। 

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানরা সংসদ সদস্য পদে নির্বাচন করতে পারবেন না মর্মে হাইকোর্টের আদেশে বাতিল হয় তোজাম্মেল হক তোজার মনোনয়ন।চূড়ান্ত মনোনয়নের দৌড়ে থেকে যায় এস এ কবীর জিন্নাহ এবং অ্যাডভোকেট খোন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলু।

কিন্তু বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আলমগীর সাক্ষরিত পত্রে এই দুইজনকেই চূড়ান্ত মনোনয়ন দিলে জটিলতা সৃষ্টি হয়।

পরবর্তীতে মহাসচিবের সঙ্গে কথা বলে বৈধ প্রার্থী হিসেবে এস এ কবীর জিন্নাহকে ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ দেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। কিন্তু রিটার্নিং কর্মকর্তার এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এবং নিজেকে বৈধ প্রার্থী দাবি করে হাইকোর্টে রিট করেন অ্যাডভোকেট খোন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলু। 

আদালত তার পক্ষে রায় দেন এবং নির্বাচন কমিশনকে তাকে ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার আদেশ দেন। এস এ কবীর জিন্নাহ হাইকোর্টের দেয়া এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেন।

সোমবার সকালে হাইকোর্টের চেম্বার জজ আদালত পূর্বের দেয়া আদেশ বহাল রাখলে মানিকগঞ্জ-১ আসনে অ্যাডভোকেট খোন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলুর মনোনয়ন বৈধ এবং ধানের শীষ প্রতীক পান।

এদিকে মনোনয়ন থেকে বাদ পড়া প্রার্থী এস এ কবীর জিন্নাহ তার বিরুদ্ধে করা নাশকতার মামলায় জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন মানিকগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক।

এই আসনের নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করছেন বর্তমান সংসদ সদস্য সাবেক ক্রিকেটার নাইমুর রহমান দুর্জয়। আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য প্রকৌশলী এবিএম আনোয়ারুল হক স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সিংহ প্রতীকে নির্বাচনী প্রচারণা করলেও পরে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থনে নির্বাচন থেকে সড়ে যান। 

ফলে মহাজোটের পক্ষ থেকে নৌকা প্রতীকে নাইমুর রহমান দুর্জয় এবং ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ডাবলু। এ আসনে নির্বাচনী লড়াই হবে নৌকা এবং ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যে। 

এই আসনে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী খোরশেদ আলম হাতপাখা ও মুসলীম লীগের ফারুক হোসেন আসাদ হারিকেন প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

ঘিওর, দৌলতপুর ও শিবালয় উপজেলা নিয়ে গঠিত মানিকগঞ্জ-১ আসনে মোট ভোটার তিন লাখ ৮৪ হাজার ৫৯১। এই আসনে বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।  

২০০৮ সালে তিনি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এবিএম আনোয়ারুল হকের কাছে পরাজিত হন। ২০১৪ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন ক্রিকেটার নাইমুর রহমান দুর্জয়। এবারও তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন :

জেবি

 

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়