Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

কেন মাকরুহ হয় রোজা?

কেন মাকরুহ হয় রোজা?
কেন মাকরুহ হয় রোজা?

এখন পবিত্র মাহে রমজান। রমজান মাস হচ্ছে মুসলমানদের সংযম ও আত্ম-পরিশোধের মাস। রোজা হচ্ছে একটি ফরজ ইবাদত। এ মাসে ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা সেহরিতে হালাল খাবার খেয়ে সূর্যাস্তের পর ইফতার পর্যন্ত উপবাস থেকে ধৈর্য ও সংযমের সঙ্গে সৃষ্টিকর্তার ইবাদত করে। এছাড়া রাতেও ইবাদত করে। কিছু বিধি-বিধান মেনে অত্যন্ত পবিত্রতার সঙ্গে রোজা পালন করার জন্য বলা হয়েছে ইসলাম ধর্মে। তারপরও রোজা থেকে অনেক সময় ছোট ছোট কিছু ভুল কাজের জন্য রোজা মাকরুহ হয়ে যায়।

মাকরুহ কী : মাকরুহ অর্থ অপছন্দনীয়। যে সকল কাজ করলে গুনাহ হয় না কিন্তু কাজগুলোকে অপছন্দ করা হয়েছে ইসলামে, সেসব কাজগুলোই মাকরুহ।

অনেকের প্রশ্ন থাকে যে, কেন মাকরুহ হয় রোজা? এবার তাহলে রোজা মাকরুহ হওয়ার কারণগুলো জেনে নেয়া যাক-

  • সারাদিন সঠিকভাবে রোজা করার পরও সন্ধ্যায় যদি হারাম খাদ্য দিয়ে ইফতার করা হয় তাহলে রোজা মাকরুহ হবে।
  • কারণ ছাড়া কোনো কিছু চিবুতে থাকলে।
  • কোনো কিছু সরাসরি মুখে পুরে রাখলেন, না খাওয়ার পরও মাকরুহ হবে রোজা।
  • পানি দিয়ে মুখ গড়গড়া করা বা নাকের ভেতর পানি টেনে নেয়ায় মাকরুহ হয় রোজা। এসব করার সময় পানি যদি পেটে চলে যায় তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।
  • স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় যদি মুখের লালা পেটে যায় তাহলে সমস্যা নেই। তবে ইচ্ছাকৃতভাবে দীর্ঘক্ষণ মুখে থুথু জমিয়ে রেখে গিলে ফেললে মাকরুহ হবে রোজা।
  • সারাদিন শরীর যদি নাপাক (অপবিত্র) থাকে তাহলেও মাকরুহ হবে রোজা।
  • কোনো বিষয়ে অস্থির হয়ে উঠলে বা কোনো কারণে কাতরতা দেখালেও কোনো কোনো ব্যাখ্যায় রোজা মাকরুহ হওয়ার কথা উল্লেখ রয়েছে।
  • পেস্ট, মাজন ও পাউডার দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করলে মাকরুহ হয়ে যায় রোজা।
  • গুল ব্যবহার করা মাকরুহ এবং থুথুর সঙ্গে যদি মুখের গুল গলার ভেতরে প্রবেশ করে তাহলে রোজা ভেঙে যাবে।
  • রোজা থেকে কোনো ব্যক্তির গিবত বা পরনিন্দা করলে মাকরুহ হয় রোজা।
  • মিথ্যা বলা মহাপাপ। রোজা রেখে মিথ্যা বললে রোজা মাকরুহ হবে।
  • রোজা রেখে ঝগড়া-বিবাদে জড়ালে মাকরুহ হবে রোজা।
  • যৌন উদ্দীপক বা উত্তেজক কাজ থেকে বিরত থাকতে হবে। এতেও মাকরুহ হয় রোজা।

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS