logo
  • ঢাকা বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬

করোনা আপডেট

  •     দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরো ৩ জন, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ জনে, নতুন আক্রান্ত ৫৪ জন, এর মধ্যে ঢাকায় ৩৯ জন আর পুরুষ ৩৩ জন, নারী ২১ জন, মোট আক্রান্ত ২১৮: আইইডিসিআর। বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮০ জনের মৃত্যু, মোট মৃত্যু ৮২ হাজারের বেশি। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৭০ জন। মোট মৃত্যু ১২৮৫৪, আক্রান্তের দিক দিয়েও সবার ওপরে যুক্তরাষ্ট্র। এরপরেই ফ্রান্সে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৪১৭ জনের। মোট মৃত্যু ১০৩২৮ জনের। মোট আক্রান্ত এক লাখ নয় হাজারের বেশি মানুষ। তবে মৃত্যুতে বিশ্বে এখনও শীর্ষ ইতালি, এরপরই স্পেন। ব্রিটেনে হঠাৎ করে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এক লাফে ৭৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গেছেন ৫ জন, শনাক্ত ৪১ জন, ঢাকায় ২০ জন ও নারায়ণগঞ্জে ১৫ জন এবং এর মধ্যে পুরুষ ২৮, নারী ১৩, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩১ জন: আইইডিসিআর।

কলেরার টিকাদান কর্মসূচি চলছে

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩:০০ | আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩:৩১
কলেরার টিকাদান কর্মসূচি চলছে
ফাইল ছবি
দেশে ডায়রিয়া ও কলেরার প্রকোপ কমাতে আজ বুধবার থেকে শুরু হয়েছে টিকাদান কর্মসূচি। সকাল ৮টা থেকে এ কর্মসূচি শুরু হয়। এ কর্মসূচি চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

ঢাকা সিটি করপোরেশনের অন্তর্গত মোহাম্মদপুর, আদাবর দারুস সালাম, কামরাঙ্গীরচর, হাজারীবাগ ও লালবাগ এলাকার ১৬টি ওয়ার্ডে (৯, ১০, ১৪, ২২-২৫, ২৯-৩৪, ৫৫-৫৭) এই টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

আজ খাওয়ানো হচ্ছে টিকার প্রথম ডোজ। এক মাস পরে টিকার দ্বিতীয় ডোজ খাওয়ানো হবে।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

এ সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) পরিচালক অধ্যাপক ডা. শাহলীনা ফেরদৌস ও আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্রের (আইসিডিডিআরবি) আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন এমিরেটাস বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরী এ সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আইসিডিডিআরবি পরিচালিত এক জরিপে দেখা গেছে, বর্তমানে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় কলেরার প্রাদুর্ভাব দেখা যাচ্ছে। ডায়রিয়াজনিত রোগের মধ্যে ২০ শতাংশই কলেরার জীবাণুবাহী।

কলেরা সংক্রান্ত আইসিডিডিআরবির সর্বশেষ পরিসংখ্যান তুলে ধরে ড. কাদরী বলেন, ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে যারা মহাখালী কলেরা হাসপাতালে আসেন তাদের মধ্যে মোহাম্মদপুর এলাকার রোগীদের কলেরা প্রবণতা সবচেয়ে বেশি। এছাড়া আদাবর এলাকায় ১ দশমিক ৩ শতাংশ, দারুসসালাম এলাকার দশমিক ৩ শতাংশ, লালবাগ এলাকার ২ দশমিক ১ শতাংশ, কামরাঙ্গীরচর এলাকার ১ দশমিক ৫ শতাংশ, হাজারীবাগ এলাকার ১ দশমিক ৭ শতাংশ।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী, আগামী ৩০ সালের মধ্যে দেশকে কলেরামুক্ত করতে হবে। সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণেই এ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এসএস

corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ২১৮ ৩৩ ২০
বিশ্ব ১৪৪৭৪৬৬ ৩০৮২১৫ ৮৩৪৭১
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ
  • স্বাস্থ্য এর পাঠক প্রিয়