logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬

অরুণ কুমার বিশ্বাসের ‘লালকুটি রহস্য’ বইয়ের প্রকাশনা উৎসব

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১:২৩
অরুণ কুমার বিশ্বাস লালকুটি রহস্য
কথাসাহিত্যিক অরুণ কুমার বিশ্বাসের ‘লালকুটি রহস্য’ বইয়ের প্রকাশনা উৎসব ও ‘বাংলাদেশে শিশুসাহিত্যের সম্ভাবনা’ শীর্ষক এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে মগবাজারের সিভিসি অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট শিশুসাহিত্যিক আলী ইমাম।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমির পরিচালক ছড়াকার আনজীর লিটন, ব্যারিস্টার ওলোরা আফরিন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লিমিটেডের স্বত্ত্বাধিকারী কামরুল হাসান শায়ক, সন্দেশ প্রকাশনীর প্রকাশক লুৎফর রহমান চৌধুরী, দোয়েল প্রকাশনীর প্রকাশক তাপস কর্মকার ও অনিন্দ্যপ্রকাশের আফজাল হোসেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রতিভা প্রকাশের প্রকাশক মঈন মুরসালিন।

অনুষ্ঠানে আলী ইমাম বলেন, শিশুসাহিত্যে এপার বাংলায় গর্ব করার মতো অনেক কিছুই রয়েছে। ইদানিং সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় মানসম্পন্ন লেখাও প্রকাশিত হচ্ছে। ছড়াসাহিত্য যেমন এগোচ্ছে তেমনি ছোটোদের গল্প, কিশোর উপন্যাসসহ সকল শাখায় উৎকর্ষ লক্ষ্য করার মতো। তাই শিশুমনের উন্নয়নের স্বার্থে সকলকে একযোগে এগিয়ে আসতে হবে। আজকের শিশুদের সুকুমার বৃত্তির সঠিক পরিচর্যা করতে পারলেই দেশের সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব।    

আনজীর লিটন তার লেখালেখির শুরু দিকের কথা তুলে ধরে বলেন, বর্তমান সময়ে মানসম্মত লেখা পেলে তা ছাপা হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি। কেননা, এখন প্রচুর পত্রপত্রিকা প্রকাশিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে লেখকের ছড়া ‘কায়ূর’ আবৃত্তি করে শোনায় খুদেশিল্পী রাজশ্রী মজুমদার।

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লিমিটেডের স্বত্ত্বাধিকারী কামরুল হাসান শায়ক বলেন, যেকোনো বইয়ের প্রকাশনা উৎসব শুধু লেখক বা বইয়ের বহুল প্রচারণার জন্যে নয় বরং সার্বিকভাবে কথাসাহিত্যকে এগিয়ে নেবার জন্যে এরকম উৎসব হওয়া উচিত।

তিনি আরো জানান, তার প্রতিষ্ঠান থেকে শিশুদের বয়সভিত্তিক নানারকম ও নানা স্বাদের বই প্রকাশিত হচ্ছে। পাঞ্জেরীর বই ইতোমধ্যে বেশ পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে। পাঞ্জেরী বাছাই করে বই ছাপে বলেই তা মানোত্তীর্ণ হয়। অরুণ কুমার বিশ্বাসের বই তিনি নিয়মিত প্রকাশ করছেন এবং ভালো সাড়া পাচ্ছেন বলেও তিনি জানান।

লেখক অরুণ কুমার বিশ্বাস মনে বলেন, শিশুদের জন্য লিখতে গেলে বরং প্রস্তুতির প্রয়োজন বেশি। শিশুমনের প্রতি গভীর সমবেদনা, সূক্ষ্ম আবেগ-অনুভূতিকে ধারণ করে তবেই তাদের জন্যে কিছু লেখা সম্ভব।

তিনি লেখার পাশাপাশি শিশুদের মাঝে পাঠাভ্যাস গড়ে তোলার উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন। নিজের লেখ্যরীতি ও প্রস্তুতি বিষয়ে তিনি জানান, শিশু-কিশোরদের নিয়ে ভাবতে তিনি ভালোবাসেন। তিনি নিজে যেহেতু গাঁয়ের ছেলে, তাই শিশুমনে স্বপ্ন বুনতে তিনি স্বচ্ছন্দবোধ করেন।

শতাধিক বইয়ের লেখক অরুণ কুমার বিশ্বাস ‘লালকুটি রহস্য’ নিয়ে জানান, এটি একটি অ্যাডভেঞ্চার বই। কিশোর মাত্রই স্বপ্ন দেখতে চায়, চায় রহস্য নিয়ে খেলতে। লালকুটি বইয়ে বন্ধুত্ব, রহস্য ও গোয়েন্দাগিরি ছাপিয়ে দেশপ্রেমকে তিনি সবার উপরে স্থান দিয়েছেন।

বইটির প্রকাশক মঈন মুরসালিন সঞ্চালনার ফাঁকে ফাঁকে জানান, অনুষ্ঠানের উপস্থিতি তাকে আশান্বিত করে। এতগুলো মানুষ বই ভালোবাসেন বলেই আজ অনুষ্ঠানে এসেছেন। তিনি প্রকাশিত বইটি পাঠকপ্রিয় হবে বলে মনে করেন।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়