• ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ফেসবুক ভেঙে ফেললে ‘বাজার দখলের প্রতিযোগিতা বাড়বে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৫ মে ২০১৯, ২৩:৪২ | আপডেট : ১৫ মে ২০১৯, ২৩:৪৭
ছবি: সংগৃহীত

ফেসবুককে ভেঙে না ফেলে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করলে ব্যবহারকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ এবং ডলার ব্যয় করে বিজ্ঞাপন দেয়ার প্রতিযোগিতা দূর হবে। অন্যথায় ‘বাজার দখলের প্রতিযোগিতা বাড়বে’, বা আরও খারাপ কিছু হবে।

মঙ্গলবার (১৪ মে ২০১৯) প্রকাশিত এক মতামতে এসব কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের আর্থিক এবং ব্যবসা সংক্রান্ত নিউজ ওয়েবসাইট বিজনেস ইনসাইডারের গ্লোবাল এডিটর-ইন-চিফ নিকোলাস কার্লসন।

তিনি বলেন, ফেসবুক ভেঙে গেলে সিলিকন ভ্যালির টেকনোলজি কোম্পানিগুলো এবং বিশ্বের তিনটি নতুন কোম্পানি বাজার দখলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠবে। এদিকে আবার তখন তাদেরকে সমর্থন দেবে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক।

কার্লসন বলেন, দ্রুতগতিতে অগ্রসরমান নতুন তিনটি, চারটি, বা পাঁচটি সোশ্যাল নেটওয়ার্ক গড়ে উঠতে দেয়ার এবং সেগুলো আবার ভাঙার দরকার নেই আমাদের। তাই ফেসবুক ভেঙে না ফেলে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করা সরকারের জন্য সবচেয়ে ভালো বিকল্প এখন।

তিনি আরও বলেন, নিয়ন্ত্রণ মানে হলো কনজ্যুমারদের ও বিদ্যমান প্লেয়ারগুলোকে সুরক্ষিত করা। পাশাপাশি বাজার দখলের পথে বাধা তৈরি করা।

গত ৯ মে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত এক নিবন্ধে ফেসবুকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ক্রিস হিউজেস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটিকে তিনটি আলাদা কোম্পানিতে বিভক্ত করার আহ্বান জানান।

এখন ২৪০ কোটির মতো ব্যবহারকারী আছে ফেসবুকের। এছাড়া হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রামের প্রতিটিতেই ১০০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী আছে। ২০১২ সালে ইনস্টাগ্রাম ও ২০১৪ সালে হোয়াটসঅ্যাপ কিনে নেয় ফেসবুক।

হিউজেসের ভাষ্য মতে, হোয়াটসঅ্যাপ ও ইনস্টাগ্রামকে আলাদা কোম্পানি করা হোক। তবে এই আহ্বান প্রত্যাখ্যান করে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণের ওপর গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ দিয়েছে।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গের বরাত দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটির মুখপাত্র নিক ক্লেগ বলেন, ইন্টারনেট নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে নতুন নিয়ম করে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোকে দায় নেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

কে/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়