logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

আমাদের সময়ের গল্প

আবু সাঈদ আহমেদ
|  ০৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:৫২
ছবি: সংগৃহীত

বাংলা গদ্য এবং বাংলাদেশের গদ্য এক নতুন যুগে প্রবেশ করেছে। ‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পগ্রন্থটি এই নতুন যুগের শক্তপোক্ত দলিল। এই দলিলের রচয়িতা সালাহ উদ্দিন শুভ্র। বাংলাদেশের যে ক’জন গল্পকার বাংলা সাহিত্যের ভাষার সহজ রূপ এবং কাঠামোর স্থানীয় ব্যকরণ নির্মাণে নিবেদিত, তিনি তাদের অন্যতম।

‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পগ্রন্থে মোট ১১টি গল্প আছে, মলাটবদ্ধ ১১টি তুরুপের তাস। প্রতিটি গল্পের ভেতর আছে একাধিক গল্প। বয়সে নবীন কিন্তু চিন্তাভাবনায় গভীর ও স্পর্ধায় সাহসী গল্পকার অনায়াসে গল্পে গল্পে বলেছেন, চলমান প্রায় দেড় দশকের মধ্যবিত্ত শহুরে প্রজন্মের মনস্তাত্ত্বিক জটিলতা, সম্পর্কের ও আর্থ-সামাজিক অবস্থানের টানাপোড়েন, অকাট সময়ের তরল রাজনীতির অন্তঃসারশূন্য প্রগতিশীলতার আইডেন্টিটি ক্রাইসিস আর একা একা ভালো থাকার সুখ ও হাহাকার।

গল্পের কোনও অংশই আরোপিত নয়, প্রতিটি গল্পের প্রতিটি চরিত্র আর ভূগোল ঢাকার মধ্যবিত্তের চেনা, যেনো বা কখনও কখনও পাঠক নিজেই গল্পের কেন্দ্রীয় চরিত্র। ‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পগ্রন্থটির প্রথম দুটো গল্প ‘মেড ইন চায়না’ এবং ‘যে দেশে রাজনীতি নাই’। ‘মেড ইন চায়না’ গল্পে আত্মপরিচয় সংকট আর শিক্ষার দোষে দুষ্ট সুপিরিয়র কমপ্লেক্সে জর্জরিত দিশাহীন তরুণ প্রজন্মের গল্প বলেছেন গল্পকার।

অন্যদিকে ‘যে দেশে রাজনীতি নাই’ গল্পটি আকারে ছোটো হলেও তাৎপর্যে গভীর। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিটে কাজ করা এক ছাপোষা সাংবাদিকের বিদেশ ট্যুরের এই গল্পে মিডিয়া এবং রাজনীতির স্থিতিস্থাপক মৌনতা বা মরণদশার যে বাস্তব চিত্র গল্পকার তুলে ধরেছেন, তার জন্য ‍শুধু সাহস নয়, স্পর্ধাও থাকতে হয়।

‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পটি বইটির সেরা গল্পের একটি। বর্তমান সময়ের চেতনানাশক চেতনায় নিমজ্জিত পশ্চাদমুখী প্রগতিশীলতা, অসাম্প্রদায়িকতার মোড়কে সাম্প্রদায়িকতার বাজারজাত, দেশপ্রেমের নামে যুক্তিহীন বিদ্বেষ, নারীবাদিতার অস্বচ্ছ ধারণা নিয়ে নারীমুক্তির বিপ্লব সাধন নিয়ে লিখেছেন লেখক।

যেসব পাঠক অভিযোগ করেন, বর্তমান সময়কে গল্পে আর পাওয়া যায় না, তারা ‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পটি পড়ুন। মাত্র চারটি চরিত্রকে ঘিরে একজন দক্ষ গল্পকার কিভাবে বর্তমান সময়ের বয়ান গল্পের ফ্রেমে ধরে রাখেন স্বতন্ত্র স্বরে, সহজবোধ্য ভাষায়!

‘নাই হয়ে যাওয়ার দিনে’ গল্পের ভাষা আর বুনন জানান দেয় গল্পকার হিসেবে সালাহ উদ্দিন শুভ্র শুধু দক্ষই নন, নিজের স্বর নিয়েই প্রতিষ্ঠিত। গল্পের শুরুটুকুর পরেই যে নিমজ্জন শুরু, তা আর শেষ হয় না, ডুবতে ডুবতে গল্পের শেষে গিয়ে স্তব্ধ হয়ে বসবেন পাঠক। গল্পের শুরুটা এভাবে- ‘মায়ের ছবিটার ওপর একটা টিকটিকি চার পায়ে আর লেজে অবোধ্য কৌশলে ধীর হয়ে আছে। তার মুখের কিছু সামনেই রং আর অবয়ব ধরা যায় না এমন একটা পোকা। টিকটিকির চোয়ালে যার জীবনের শেষ পরিণতি। অথচ এই মুহূর্তে পোকাটা তা বুঝতে পারছে না। সেই পোকা তখন তার জীবনের কোনও ক্ষণ নিয়ে হয়তো ব্যস্ত।’

‘সেক্স ইন দ্যা সিটি’, ‘ভাদ্রর ভুল দুপুর’ আর ‘নিম্নমধ্যবিত্তের ইতিহাস’ গল্প দুটো ভাব, ভাষা ও বুননে- অর্থাৎ প্রতিটি বিচারেই অসাধারণ। ‘আজ খুব শীত’ আর ‘লাল রং কৃষ্ণচূড়া’ গল্প দুটো জানায় এদেশে রাজনীতি আছে, এই রাজনীতিকে চ্যালেঞ্জ করে সুরাজনীতি প্রতিষ্ঠার অসুখ ছড়ানো কৃষ্ণচূড়াও ফোটে এই শহরে।

‘মৌসুমি বায়ু আসে’ গল্পের সাহিত্য করা চরিত্র অনায়াসে জানান দেয়, ‘ঢাকায় সাহিত্য করতে এসে ঢাকার লোকদের না চিনে সাহিত্য করা যায় না। কিন্তু আমাকে না চিনে সাহিত্য করা যায়। ওদের ইন্টারোগেশনের চৌকাঠ পাড়ায়ে তারপর সাহিত্যিক স্বীকৃতি মেলা।’

কিন্তু ‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পগ্রন্থে সালাহ উদ্দিন শুভ্র ঢাকার সাহিত্য করা লোকদেরই ইন্টারগেশন শুরু করে দিয়েছেন, স্বীকৃতিদাতাদের ফেলে দিয়েছেন প্রকট প্রশ্নের মুখে তার প্রতিটা গল্পে, গল্পের ভেতরে প্রবাহমান গল্পেও ছাড় দেননি কাউকে। এখানেই মেয়েদের এমন হয় গল্পগ্রন্থটি সাধারণ থেকে বিশেষ হয়ে উঠেছে, সালাহ উদ্দিন শুভ্র গল্পকার হিসেবে হয়ে উঠেছেন একই সাথে স্পর্ধিত ও সৎ।

‘মেয়েদের এমন হয়’ গল্পগ্রন্থটি প্রকাশ করেছে আদর্শ। চমৎকার প্রচ্ছদ করেছেন মোস্তাফিজ কারিগর। বইটির গায়ের দাম ৩০০ টাকা। রকমারি ডটকম-এ পাওয়া যাবে আরো কম দামে।

কে/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়