Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

যোগাযোগের মধ্যে এগিয়ে চলছে পৃথিবী  

যোগাযোগের মধ্যে এগিয়ে চলছে পৃথিবী
ফাইল ছবি

কমিউনিকেশনের (যোগাযোগ)'র মধ্যে দিয়ে আমাদের পৃথিবী এগিয়ে চলছে। যার কমিউনিকেশন যত ভালো তার চাহিদা তত বেশি। ব্যাক্তি জীবন বা করপোরেট অফিস সব জায়গায় কমিউনিকেশনের ছড়াছড়ি।

কঠিন সংজ্ঞায় যদি সংজ্ঞায়িত করা হয় তাহলে বলা যায় - কথা বলা, লেখার মাধ্যমে বা অন্য কোনোও মাধ্যম ব্যবহার করে তথ্য সরবরাহ বা বিনিময় করাকে যোগাযোগ বলে। সফল ধারণা পৌঁছে দেওয়া বা ধারণা এবং অনুভূতি ভাগ করে নেওয়াকেও যোগাযোগ বলে। যদি পাঠ্যক্রমের বাইরে একটু সহজ করে বলি তা হলো - আমার কথা আপনাকে বুঝাতে পারাটাই আমার কমিউনিকেশন।

কিন্তু করপোরেট কমিউনিকেশন একটু আলাদা। এখানে অল্প সময়ে আপনাকে অনেক কিছু বুঝাতে হবে। আপনার প্রতিষ্ঠানকে সঠিকভাবে স্বল্প সময়ে সঠিক ব্যাক্তির সামনে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করার জন্য লিখিত ও মৌখিক উভয় ধরনের কমিউনিকেশনের ক্ষেত্রে আপনাকে উপযুক্ত শ্রুতিমধুর ভাষা ব্যবহার করতে হবে।

করপোরেট কমিউনিকেশনে আপনাকে প্রথমেই গ্রহণযোগ্য হতে হবে। মনে রাখবেন, আপনি যদি গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করতে না পারেন আপনি হাজারটা কাজ করেও নিজের নাম অর্জন করতে পারবেন না।

ধরেন, আপনি যখন সকালে অফিসে যান তখন প্রতি দশজনে ছয়জনকে বলতে হবে - ভাই কি অবস্থা? কখন আসছেন? চা খাবেন নাকি?

আর যদি আপনি অফিসে গিয়ে আপনার মত কাজ করলেন, কেউ যদি আপনাকে কোনোকিছু জিজ্ঞেস না করে করে তাহলে বুঝতে হবে আপনার গ্রহণযোগ্যতা এখন তৈরি হয়নি।

আপনার মধ্যে অসম্ভব রকমের প্রফেশনালিজম (চিন্তাভাবনা ও সামগ্রিক আচরণ) নিয়ে আসতে হবে। আরেকজন করে দিবে তার নামের উপর দিয়ে আপনি চলে যাবেন সেই দিন শেষ। আপনি বস মানুষ, অফিসে বা কোনো মিটিংয়ে আপনি চাইলেই দশ মিনিট দেরি করে যেতে পারেন। কিন্তু আপনি যদি অন্তত দুই মিনিট আগে মিটিংয়ে জয়েন করে থাকেন সেই মিটিং আপনি দেরিতে আসা মিটিংয়ের থেকে ফলপ্রসূ হবে। প্রতিটি কাজে সৌন্দর্য তুলে ধরুন। একটি ডকুমেন্টেশন বানিয়েছেন বা কাউকে মেইল করেছেন যেখানে শুধুমাত্র করতে হবে তাই করছি এই চিন্তাভাবনা থেকে সরে আসুন। কাজকে নিজের মনে করে করতে হবে তাহলে অসম্ভব সুন্দর একটি কাজ বের হয়ে আসবে। কেননা নিজের সন্তানকে আমরা সবসময় পরিপাটি রাখি।

লিংকড-ইনের মাধ্যমে আপনি বিশাল করপোরেট নেটওয়ার্ক তৈরি করতে পারবেন। কিন্তু বাধা আসবে ঐ কমিউনিকেশনে। কারণ সেখানে সবাই হাই প্রোফাইল লোকজন। তারা কিন্তু অনেক বেশি ব্যস্ত। আপনার হাই হ্যালো কেমন আছেন শোনার জন্য কেউ বসে নাই। এসব লিখলে সবাই সিন করে রেখে দিবে। আপনি কি বলতে চাচ্ছেন তা ছোটকরে সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে লিখুন। ওপাশ থেকে উত্তর আসবে। অর্থাৎ আপনি একটি কোম্পানির এমডির সঙ্গে দেখা করতে চান আপনাকে লিখতে হবে-শুভ সকাল। আপনি মেহেদী হাসান, একটি কোম্পানির ফাউন্ডার। আপনাকে আমাদের আগামী 'ক' তারিখে অনুষ্ঠিত 'খ' অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। এই সামগ্রিক বিষয়ে আপনার সঙ্গে কথা বলতে চাইছি। আশা করি এমডি নিষ্ঠুর হবেন না।

আপনি কোনো একটি সামিট বা কনফারেন্সে গিয়েছেন। বর্তমানে এগুলো নেটওয়ার্কিংয়ের জন্য খুবই ভালো জায়গা। কিন্তু সেখানেও আপনার কমিউনিকেশন স্কিল ভালো না হলে আপনি নেটওয়ার্কিং করতে পারবেন না। প্রথমেই বলবো চেষ্টা করবেন পরিচিতদের সঙ্গে না বসার। কারণ পরিচিতদের সঙ্গে বসলে আপনার কথা তাদের সঙ্গেই হবে নতুন কারও সঙ্গে হবে না।

সর্বোপরি, করপোরেট কমিউনিকেশনে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পায় ই মেইল। আপনি চাইলেই হয়তো হোয়াটসঅ্যাপ বা ফেসবুকে ফাইল পাঠাতে পারেন। কিন্তু আপনি যখন একবার মেইলে করতে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন তখন আপনার কমিউনিকেশন আরও বেশি ভালো হবে।

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS