logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় বহনে হিমশিম খাচ্ছেন  শিক্ষার্থীরা (ভিডিও)

Private University Bangladesh,
ছবি- আরটিভি নিউজ।
করোনা সংকটের মধ্যে অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা নিচ্ছে অধিকাংশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়।  ক্লাস নিয়ে খুব বেশি সমস্যা না থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় বহন করতে হিমশিম খাচ্ছে অনেক শিক্ষার্থী।  টিউশন ফি অর্ধেক করার দাবি জানিয়েছে তারা। এ বিষয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলছেন, শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের খরচ মেটাতে টিউশন ফি নেয়া হচ্ছে।  তবে এক্ষেত্রে ২০ শতাংশ ছাড় দেয়া হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি সিদ্ধান্তে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইনে ক্লাস পরিচালনা করছে।  ৭০ থেকে ৮০ ভাগ শিক্ষার্থী এতে অংশ নিচ্ছে।  সেশনজট এড়াতে অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষাও নিচ্ছে অনলাইনে।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা জানান, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগুলো নেওয়া হচ্ছে গুগল ফর্মে। টিচাররা একটি নিদিষ্ট সময় দিয়ে দেয়, আমরা সেই সময়ের মধ্যে গুগল ফর্ম সাবমিট করি।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় ব্যয় বহুল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ব্যয়। অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ে সেমিস্টার ফি ৫০ থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত দিতে হয়। তাই করোনায় আর্থিক সংকটে পড়ে শিক্ষা খরচ মেটাতে সমস্যায় পড়েছেন অনেক শিক্ষার্থী। বেশির ভাগই বেতন কমানোর দাবি। টিউশন ফি কমানোর দাবিতে আন্দোলন করে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের  শিক্ষার্থীরা।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, প্রথম দিকে বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের ২০% ওয়েভার দিতো।  কিন্তু হঠাৎ করোনার মধ্য তারা সেটা পুরোটাই উঠিয়ে দিয়েছে।  এছাড়াও আমরা এখন সবকিছু অনলাইনে করছি । ফলে আমাদের তো কোনো কিছু ব্যবহার করতে হচ্ছে না। তাহলে আমাদের থেকে কেন এই ফিগুলোও নেওয়া হবে।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টিউশন ফি নেওয়া হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের যাবতীয় খরচ মেটাতে। আমরা শিক্ষার্থীদের নানা সমস্যার কথা চিন্তা করে টিউশন ফি বাবদ ২০% ছাড় দিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি যদি এভাবেই চলতে থাকে, মানুষ চাকরি হারাচ্ছে, ইনকাম কমতে শুরু করেছে। ফলে আর্থিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ভর্তিতে ভাটা পড়তে পারে। অনেক বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধও হয়ে যেতে পারে। যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হয় তাহলে  বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অনলাইনের ভর্তি কার্যক্রম শুরু করবে বলে জানান তিনি।

এসএম/এমকে

RTVPLUS