Mir cement
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮

রমজানে ও পরে সুস্থ থাকতে এখনই যা জানা দরকার

রমজানে ও পরে সুস্থ থাকতে এখনই যা জানা দরকার
রমজানে ও পরে সুস্থ থাকতে এখনই যা জানা দরকার

রমজান মাস চলছে। প্রায় শেষ দিকে রমজান। তারপরও এর রেশ দীর্ঘদিন থেকে যাবে। তাই এখন থেকেই রমজান ও রমজান পরবর্তী কিছু নির্দেশনা মেনে চলা উচিত। যাতে করে শরীর স্বাস্থ্য ভালো থাকে এবং শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

করোনাকালীন রমজানে একসঙ্গে অনেক খাবার খাওয়া হলে পেটের সমস্যা, মাথাব্যথা, দুর্বলতা, অবসাদ, আলসার, অ্যাসিডিটি ও হজমজনিত বিভিন্ন সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এছাড়াও অনাকাঙ্ক্ষিত ওজনও বেড়ে যায়। তাই রমজানে ইফতারে জেনে বুঝে খাবার খাবেন। খাদ্য তালিকার উপর নির্ভর করবে আপনার শারীরিক সুস্থতা। এবার তাহলে রমজানের ইফতারের খাদ্য তালিকা তুলে ধরা হলো-

বেশি বেশি পানি পান করা : রোজা থাকার পর ইফতার থেকে সেহরি পর্যন্ত বার বার পানি পান করুন। তবে একসঙ্গে বেশি পান করবেন না।

ফলমূল, ফলের রস ও দুধ : শরীরকে ঠান্ডা করার জন্য বিভিন্ন ফলমূল খেতে পারেন। এছাড়া যারা গোটা ফল খেতে ভালোবাসেন না তারা রস করে খেতে পারেন।। যেমন, তরমুজ, বাঙ্গি, আনারস, মাল্টা, আম, পেঁপে কলা ও আপেলের জুস। চাইলে কেউ হালকা গরম দুধও পান করতে পারেন।

শাক-সবজি : সবুজ শাক-সবজি খাওয়ার বিকল্প কিছু নেই। এসব উপাদান শরীরকে সতেজ রাখতে ভূমিকা রাখবে। সাধারণত বাইরে থেকে প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়ায় ক্ষতি হয়ে থাকে শরীরের। কিন্তু সবুজ শাক-সবজি খাওয়ার ফলে কোনো ক্ষতি হয় না। বরং উপকারই বেশি হয়।

চা-কফিকে না : ইফতারের পর কফি, চা বা অন্য কোনো সফ্ট ড্রিঙ্কস পান করবেন না। যদি কখনো পানও করে থাকেন তাহলে এসবকে পানির সঙ্গে তুলনা করবেন না। এসব ড্রিঙ্কস পানের ফলে শরীর দ্রুত পানিশূন্য হতে থাকে।

ভাজা-পোড়াকে না বলুন : ইফতারে আমাদের মিষ্টি এবং ফ্যাটজাতীয় খাবারের প্রতি আগ্রহ জাগে। এই সময় ভাজা-পোড়াজাতীয় খাবারও খেয়ে থাকি আমরা। এসব খাবার খাওয়ার ফলে পেটে হজমজনিত সমস্যা হতে পারে। তবে তেল-মসলা ছাড়া ছোলা খাওয়া যেতে পারে। এছাড়া গ্রিলড, বেকড বা স্টিমযুক্ত খাবারও পরিমাণ মতো খেতে পারেন।

এসআর/

RTV Drama
RTVPLUS