logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬

করোনা আপডেট

  •     দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু আরো ৩ জন, এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২০ জনে, নতুন আক্রান্ত ৫৪ জন, এর মধ্যে ঢাকায় ৩৯ জন আর পুরুষ ৩৩ জন, নারী ২১ জন, মোট আক্রান্ত ২১৮: আইইডিসিআর। বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৩৮০ জনের মৃত্যু, মোট মৃত্যু ৮২ হাজারের বেশি। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৭০ জন। মোট মৃত্যু ১২৮৫৪, আক্রান্তের দিক দিয়েও সবার ওপরে যুক্তরাষ্ট্র। এরপরেই ফ্রান্সে গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১৪১৭ জনের। মোট মৃত্যু ১০৩২৮ জনের। মোট আক্রান্ত এক লাখ নয় হাজারের বেশি মানুষ। তবে মৃত্যুতে বিশ্বে এখনও শীর্ষ ইতালি, এরপরই স্পেন। ব্রিটেনে হঠাৎ করে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এক লাফে ৭৮৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মারা গেছেন ৫ জন, শনাক্ত ৪১ জন, ঢাকায় ২০ জন ও নারায়ণগঞ্জে ১৫ জন এবং এর মধ্যে পুরুষ ২৮, নারী ১৩, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৩১ জন: আইইডিসিআর।

ঘরের যেসব জিনিসে রয়েছে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি

লাইফস্টাইল ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২৪ মার্চ ২০২০, ০৮:৫৫ | আপডেট : ২৪ মার্চ ২০২০, ০৯:১৬
ঘরের যেসব জিনিসে রয়েছে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি
ঘরের যেসব জিনিসে রয়েছে করোনাভাইরাসের ঝুঁকি

বিশ্বব্যাপী বেড়েই চলেছে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব। মহামারি আকার ধারণ করেছে এই ভাইরাস। কোভিড-১৯ নামের নতুন এই ভাইরাসে ইতোমধ্যে ১৯০টির বেশি দেশে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে আরও ৩১ হাজার ৮০২ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৩৬ হাজার ৮৩৮ জন। এর মধ্যে ৯৭ হাজার ৬৩৬ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ২ লাখ ২৪ হাজার ৫৮৬ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে ২ লাখ ১৩ হাজার ৯৪৬ জনের অবস্থা স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে। বাকি ১০ হাজার ৬৪০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রাণঘাতী এই ভাইরাস প্রতিরোধে সব কিছুতেই সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হচ্ছে। করোনাভাইরাস ঠাণ্ডা-সর্দি-কাশি থেকে শ্বাসকষ্ট পর্যন্ত সংক্রমণ ঘটায়। তবে আতঙ্কিত হওয়ার প্রয়োজন নেই। যত্ন নেয়া হলে এই সংক্রমণ এড়ানো যায়।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে। ফলে সতর্ক হওয়ার এখনই সময়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত হাত ধোয়া বা টিস্যুতে হাঁচি দেয়া ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমাতে পারে। এর বাইরেও আপনি কিছু প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে পারেন।

গবেষণায় দেখা গেছে ভাইরাসটি বেশ কয়েক ঘণ্টা শক্ত কোনো কিছুর উপরে বেঁচে থাকতে পারে। অর্থাৎ প্রতিদিনের ব্যবহার্য জিনিসপত্র, ঘরের মেঝে এবং আসবাবপত্রের উপরিতলে এটি অবস্থান করতে পারে। ঘরবাড়ি যতটা সম্ভব কম ঝুঁকিপূর্ণ নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) ঘরের উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ স্থানের তালিকা তৈরি করেছে। সেসব স্থান জীবাণুমুক্ত রাখার পরামর্শ দিয়েছে তারা। স্থানগুলো হলো-

* কিচেন কাউন্টার টপস
* টেবিল
* দরজার হাতল
* বাথরুমের ফিক্সচার
* টয়লেট
* ফোন
* কি-বোর্ড
* ট্যাবলেট পিসি
* টেবিলের আশপাশে
* যেকোনও ভবন যেখানে রক্ত, মল বা ঘাম লেগে থাকতে পারে।

যেভাবে সুরক্ষিত থাকবেন

সিডিসির পক্ষ থেকে, ঘরের জিনিসপত্র নিয়মিত জীবাণুনাশক স্প্রে দিয়ে পরিষ্কার করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া স্প্রে ব্যবহারের সময় গ্লাভস পরার পাশাপাশি ঘরে বায়ু চলাচল নিশ্চিত করার কথাও বলা হয়েছে।

সিডিসি’র মতে, নিজের জিনিসপত্র পরিবারের অন্যদের সঙ্গে শেয়ার না করাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ। তারা জানিয়েছেন, বাড়ির অন্যান্য লোক বা পোষা প্রাণীর সাথে বাসন, চশমা, কাপ, খাবারের পাত্র, তোয়ালে বা বিছানা ভাগ করা উচিত নয়।’

এগুলো ব্যবহার করার পর সাবান এবং পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলার পরামর্শ দিয়েছে সিডিসি।  

এস

corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ২১৮ ৩৩ ২০
বিশ্ব ১৪৬৪৮৫২ ৩১৫১০৫ ৮৫৩৯৭
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • লাইফস্টাইল এর সর্বশেষ
  • লাইফস্টাইল এর পাঠক প্রিয়