logo
  • ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

লাইফস্টাইল ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ২৩ অক্টোবর ২০২০, ২৩:৫৪
আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০

পেটের মেদ কমানোর কৌশল

health, lifestyle, man
পেটের মেদ
পেটের মেদ নিয়ে অনেকেই চিন্তিত থাকলেও উপায় খুঁজে পাচ্ছেন না। আবার অনেকে অনিয়ন্ত্রিত খাবার খেয়ে মেদ বাড়িয়ে উপায় খুঁজছেন। মেদ মানব দেহে দৈহিক সৌন্দর্য নষ্ট করে ফেলে। জামা কাপড় পড়লে পেট বেরিয়ে পড়ে। তাই মেদ নিয়ে অনেকেই দুশ্চিন্তায় ভুগছেন। এখন দুশ্চিন্তা কমিয়ে ফেলে সহজ উপায়ে পেটের মেদ কমানোর কৌশল জেনে নিন। 

১. সকালে খালি পেটে কুসুম গরম পানির মধ্যে লেবুর রস মিশিয়ে এক গ্লাস পানি পান করুন। প্রাকৃতি উপায়ে মেদ কমানোর সবচেয়ে ভাল ও সহক কৌশল এটি।
২. সাদা ভাত কমিয়ে সবজি ও রুটি খেতে পারেন। দুই মাস নিয়মিত সকালে ও রাতে এমন খাবার অভ্যাস করলে দেখতে পাবেন মেদ কমে স্লিম হয়ে গেছেন।
৩. চিনি জাতীয় খাবার কম খাবেন। চকলেট, আইসক্রিম, ফিরনী কম খাবেন। 
৪. তেল জাতীয় খাবার কমিয়ে ফেলুন। কোল্ড ড্রিঙ্কসগুলো শরীরের বিভিন্ন জায়গায় চর্বি জমিয়ে রাখে। এসব খাদ্য থেকে নিজেকে বিরত রাখবেন।
৫. খাদ্য তালিকা থেকে মাছ, মাংস কমিয়ে ফেলুন। তবে মাছের চামড়া ছাড়া খেতে পারেন। ঝাল খাবার খেতে পারেন।
৬. নির্দিষ্ট সময়ে প্রতিদিনি খাবার খান। খাবে অনিয়ম হলে পেটের মেদ বাড়ে।
৭. তেল, মিষ্টি ও চর্বি জাতীয় খাবার অভ্যাস কমিয়ে ফেলুন। দিনে দু–তিন বার চিনি ছাড়া কালো চা বা কফি খান। কফির ক্যাফেইনের প্রভাবে ৫–৮ শতাংশের মতো বিপাক ক্রিয়া বাড়ে। ৯৮–১৭৪ ক্যালোরি বেশি খরচ হয়। চায়ে বিপাক ক্রিয়া বাড়ে প্রায় ১২ শতাংশ। গ্রিন টি আরও ভাল। ওজন নিয়ে ব্যায়াম করার সঙ্গে খেলে চর্বি বেশি পোড়ে।
৮.  দিনে ৩ রকম ফল ও নানা রকম শাক–সবজি খান। অন্যান্য পুষ্টির পাশাপাশি ২৫–৩০ গ্রামের মতো ফাইবার পাবেন। আর তাতে প্রায় ৩০ শতাংশের মতো চর্বি কমবে।
৯. নিয়মিত সামুদ্রিক মাছ, চর্বি ছেটে ফেলা মাংস, বিনস, আয়রন ফর্টিফায়েড সিরিয়াল, পালং ইত্যাদি খেলে শরীরে আয়রন থাকে পর্যাপ্ত। চর্বি বেশি হয়।
মেডিসিনের চিকিৎসক সুকুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, অনিয়মিত খেলে ফ্যাট বাড়ে। বাড়ে ওজন। কাজেই সতর্ক থাকুন। নিয়মতি খাবারের অভ্যাস করুন। 

মনোরোগ বিশেষজ্ঞ শিলাদিত্য মুখোপাধ্যায় বলেন, মানসিক চাপ কমিয়ে ভাল করে ঘুম দরকার। তা না হলে শরীরে খিদের হরমোন বাড়ে। কমে তৃপ্তির হরমোন। বাড়ে টুকটাক খাওয়ার প্রবণতা। সবে মিলে ওজন বাড়তে শুরু করে। কাজেই দিনে অন্তত মিনিট ১৫–২০ যোগাভ্যাস ও মেডিটেশন করুন। মানসিক চাপ কমবে। ঘুম ভাল হবে। প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।
ফিজিকাল মেডিসিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মৌলিমাধব ঘটকের কথায়, দ্য সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের মতে সপ্তাহে অন্তত ১৫০ মিনিট মাঝারি ধরনের ঘাম ঝড়ানো ব্যায়াম করলে হার্ট যেমন ভাল থাকে, চর্বিও গলে। কাজেই  সপ্তাহে কম করে পাঁচদিন ৫–৬ কিমি গতিতে আধ ঘণ্টা থেকে ৪৫ মিনিট হাঁটুন বা সাইকেল চালান। সাঁতার কাটলে বা নাচলেও কাজ হবে। ভাল ফিটনেস থাকলে সপ্তাহে ৭৫ মিনিটের মতো জগিং, দৌড়োনো বা কিক বক্সিংও করতে পারেন। সূত্র: আনন্দবাজার

এফএ
 

RTVPLUS