Mir cement
logo
  • ঢাকা সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮

লাইফস্টাইল ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ১৫ জুন ২০২১, ১৬:৪০
আপডেট : ১৫ জুন ২০২১, ১৬:৪৩

লকডাউনে ৭৩ শতাংশ মানুষ নির্যাতনের শিকার: গবেষণা

প্রতীকী ছবি

করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও অঞ্চলে লকডাউন পালন করা হয়েছে। এখনো বিভিন্ন অঞ্চলে লকডাউন চলছে করোনা রোধে। লকডাউনের সময় অফিস ও কর্মক্ষেত্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অধিকাংশ কর্মজীবীদেরই বাসায় ঘরবন্দি সময় কাটাতে হচ্ছে। এদিকে ‘এজওয়েল ফাউন্ডেশন’র এক প্রতিবেদন বলছে, লকডাউনের সময় ভারতে বয়স্ক জনসংখ্যার কমপক্ষে ৭৩ শতাংশ নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৫ হাজার প্রবীণ ব্যক্তির থেকে প্রতিক্রিয়া নেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে ৮২ শতাংশ বলেছেন করোনা তাদের জীবনে বিরূপ প্রভাব ফেলেছে।

উত্তরদাতারা জানিয়েছেন, লকডাউন ও এর পরে তাদের ওপর নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে। ৫ হাজারের মধ্যে ৬১ শতাংশ মানুষ দাবি করেছেন, পরিবারে বয়স্কদের নির্যাতনের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে পারস্পরিক সম্পর্কই মূল কারণ। সমীক্ষায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে, প্রবীণদের মধ্যে ৬৫ শতাংশ অবহেলার শিকার হয়েছেন। অন্তত ৫৮ শতাংশ জানিয়েছেন তারা পরিবার এবং সমাজে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। এছাড়া অন্তত ৩৫ দশমিক ১ শতাংশ প্রবীণ গার্হস্থ্য হিংসার মুখোমুখি হন।

এজওয়েল ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হিমাংশু রথ জানিয়েছেন, করোনাকালে বয়স্ক ব্যক্তিরা এখনও ঝুঁকিপূর্ণ। প্রবীণদের নির্যাতনের ঘটনা সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করা এখন খুবই জরুরি। নির্যাতন করা হলে কী ধরনের সহায়তা পাওয়া যায়, আইনি নিয়ম সম্পর্কে বয়স্কদের সচেতন করা উচিত।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অধিকাংশ বয়স্ক মানুষদের যত্নের প্রয়োজন হয়। এ জন্য তাদের পরিবারের প্রতি নির্ভর করতে হয়, যা তাদের দুর্বল করে তোলে। নিজ পরিবার থেকেই দুর্ব্যবহার, নির্যাতন ও হয়রানি হতে হয়। আর সব থেকে খারাপ পরিস্থিতি হয় মহিলাদের। কারণ তাদের ক্ষেত্রে আর্থিক অবস্থা, অন্যের প্রতি নির্ভরশীল ও পুরুষের তুলনায় দীর্ঘ জীবন। তবে এই সময়ে প্রবীণদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার ও যত্নশীল হওয়া উচিত। সূত্র : আনন্দবাজার

এসআর/

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS