Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮

ইসরায়েলের হামলা নিয়ে এরদোয়ান ও রুহানির মাঝে যে আলোচনা হয়

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ও ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী ঈদের দিনে ফিলিস্তিনি নিরীহ মানুষের ওপর হামলা চালিয়েছে। এই হামলা গত সাত দিন ধরে চালাচ্ছে ইসরায়েল। এতে ফিলিস্তিনি শিশুসহ ১৮১ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। ইসরায়েলি বাহিনীর বিমান হামলায় ফিলিস্তিনি নিরস্ত্র মানুষ নিহত হওয়ার চলমান বিষয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান ও ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির মধ্যে ফোনালাপ হয়েছে।

রোববার (১৬ মে) তুর্কি বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা যায়।

তুরস্কের যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, এরদোয়ান রুহানিকে বলেছেন, ইসরায়েল সাময়িক বাহিনী ফিলিস্তিনি নিরীহ মানুষের ওপর হামলা চালাচ্ছে। ইসরায়েলের বিরুদ্ধে তুরস্ক কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

এরদোয়ান বলেন, নিরীহ মানুষের ওপর সাময়িক বাহনীর এমন আগ্রাসনের বিরুদ্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিত এখনই ইসরায়েলকে কঠিন বার্তা দেয়া। একইসঙ্গে ইসলামি বিশ্বকে অভিন্ন আলোচনা এবং ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ফোনালাপের সময় দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়েও তারা আলোচনা করেন বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

গত এক সপ্তাহে গাজায় ইসরায়েলি হামলায় কমপক্ষে ১৮১ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এর মধ্যে ৫২ জনই শিশু। অপরদিকে আহত হয়েছে এক হাজারের বেশি মানুষ। পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে কমপক্ষে ১৩ ফিলিস্তিনি নিহত হয়। অপরদিকে হামাসের হামলায় এখন পর্যন্ত ইসরায়েলে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশটির পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। শনিবার সেখানে নতুন করে দুই ইসরায়েলি নিহত হয়।

শনিবার রাতে টেলিভিশনে দেয়া এক ভাষণে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনজামিন নেতানিয়াহু জানিয়েছিলেন, যতক্ষণ প্রয়োজন গাজায় হামলা অব্যাহত থাকবে। অপরদিকে হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া জানিয়েছেন, ইসরায়েলি হামলার পাল্টা জবাব দেয়া হবে।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS