logo
  • ঢাকা বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ভারতে গরিব হিন্দুর তৈরি প্রতিমা বৃষ্টিতে ঠাঁই পেল নামাজের ঘরে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২৬ অক্টোবর ২০১৯, ২২:৪৪
মুসলিম, হিন্দু
ভারতের গণমাধ্যম দ্য ওয়াল
ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পূর্ব বর্ধমান জেলার কাটোয়া শহরের গরিব মৃৎশিল্পী অসীম পালের আটটি কালীপ্রতিমা বৃষ্টি থেকে রক্ষা করতে মুসলিম প্রতিবেশী ফরজ শেখ নিজের নামাজের ঘরের একাংশ ছেড়ে দিয়েছেন। খবর ভারতের গণমাধ্যম দ্য ওয়ালের।

কাটোয়া এক ব্লকের খাজুরডিহি গ্রামের বাসিন্দা অসীম পাল। প্রতিমা তৈরি করে কোনোমতে সংসার চালান তিনি। এবার এলাকার আটটি কালীপ্রতিমা তৈরির কাজ পান তিনি। নিজের থাকার ঘরে কোনোমতে একটা প্রতিমা রাখতে পেরেছিলেন তিনি।

এই গরিব মৃৎশিল্পী উঠানে প্লাস্টিকের ছাউনি দিয়ে অন্য প্রতিমাগুলো তৈরি করছিলেন। বুধবার থেকে টানা বৃষ্টি শুরু হলে ছাউনি ভেদ করে পানি ঢুকতে শুরু করে। ধুয়ে যেতে থাকে প্রতিমাগুলোর রঙ। এমনকি গলতে শুরু করে মাটি। কিভাবে রক্ষা করবেন প্রতিমাগুলো ভেবে দিশাহারা হয়ে পড়েন তিনি।

অসীম পালের এই দুর্দশা দেখে এগিয়ে আসেন মুসলিম প্রতিবেশী ফরজ শেখের স্ত্রী আফরোজা। তারা দাঁড়িয়ে থেকে প্রতিমাগুলো তাদের একটি ঘরে নিয়ে যান। শুক্রবার জুমার নামাজ আদায় করতে মসজিদে যেতে পারেনি ফরজ শেখ। যে ঘরে প্রতিমাগুলো রাখা হয়, সেই ঘরেই নামাজ আদায় করেন তিনি।

ফরজ শেখ এই বিষয়ে বলেন, আমার প্রতিবেশী প্রতিমা তৈরি করেই সংসার চালান। এমন বৃষ্টিতে তিনি বিপদে পড়ে যান। তাই আমার ঘর ছেড়ে দিয়েছি। কেউ বিপদে পড়লে কি তার ধর্ম বিচার করলে চলে? সবার ওপরে মানুষ সত্য।

তার এই মানসিকতায় আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছেন অসীম পাল। তিনি বলেন, আমার বাড়িতে জায়গা ছিল বলে উঠানে প্লাস্টিকের ছাউনি দিয়ে প্রতিমা তৈরি করছিলাম। কিন্তু যেভাবে বৃষ্টি নামে তাতে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ করতে পারতাম না। ফরজ শেখ এগিয়ে এলেন বলেই পারলাম।

এদিকে ফরজ শেখের বাড়িতে প্রতিমা তৈরি হওয়ায় খুব খুশি তার চার বছর বয়সী মেয়ে ফারহা। নাওয়া-খাওয়া ভুলে তার এখন একটাই কাজ। আর সেটি হলো, পা ঝুলিয়ে বসে খুব কাছ থেকে প্রতিমা তৈরি করা দেখা।

কে/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • আন্তর্জাতিক এর সর্বশেষ
  • আন্তর্জাতিক এর পাঠক প্রিয়