• ঢাকা সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৬ ফাল্গুন ১৪২৫

ভারতে বিষাক্ত মদপানে শতাধিক মানুষের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
|  ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৮
ছবি: রয়টার্স নিউজ এজেন্সি

ভারতের দুই রাজ্যে বিষাক্ত ও অবৈধ মদপানের ফলে শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। গত কয়েক বছরের কোনটিতেই এতো বেশি সংখ্যক মানুষ বিষাক্ত মদপানের ফলে মারা যায়নি।

সোমবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে দেশটির পুলিশ ও গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানায় যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মৃতদের বেশিরভাগই ভারতের উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বার এবং পার্শ্ববর্তী উত্তরপ্রদেশের দুটি জেলার বাসিন্দা। তারা পেটের ব্যথা এবং শ্বাসকষ্টে ভুগতেন বলে জানিয়েছেন তাদের আত্মীয় এবং সরকারি কর্মকর্তারা।

হরিদ্বারের সিনিয়র সুপারিন্টেনডেন্ট অব পুলিশ জন্ময়জয় প্রভাকর বার্তা সংস্থাটিকে বলেন, এসব মৃত্যুর সঙ্গে জড়িত থাকায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তিনি বলেন, হরিদ্বারে বিষাক্ত মদপানের ফলে ৩৬ জনের অসুস্থ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া ঠিক এই মুহূর্তে ১৮ জন চিকিৎসাধীন আছেন।

উত্তরপ্রদেশের সরকারি কর্মকর্তারা এদিন বিষাক্ত মদপানের ফলে অসুস্থ হওয়া ব্যক্তিদের সঠিক সংখ্যা জানাতে পারেননি। কিন্তু রাজ্যটিতে ৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এবং টাইমস অব ইন্ডিয়া।

অবৈধভাবে উৎপাদিত এবং স্থানীয় পর্যায়ে ‘হুচ’ বা ‘দেশীয় মদ’ হিসেবে পরিচিত এই পানীয় পানের ফলে ভারতে মৃত্যুর ঘটনা নতুন নয়।

এর আগে ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গে বিষাক্ত মদপানের ফলে ১৭২ জনের মৃত্যু হয়। এবার মৃতের সংখ্যা এর বেশি হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

একজন ভুক্তভোগীর স্ত্রী রয়টার্সের সহযোগী সংস্থা এএনআই’কে জানান, তার স্বামী পেটে ব্যথা অনুভব করার পর তিনি ব্যথানাশক ইনজেকশন নেন। এরপর তিনি সুস্থ বোধ করেন এবং বাড়ি ফিরে ঘুমিয়ে পড়েন। কিন্তু পরে আবার তার পেটের ব্যথা বাড়লে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

উত্তরপ্রদেশের সহরনপুর ডিসট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট অলোক কুমার পান্ডে বলেন, গত সপ্তাহে একাধিক চিকিৎসক জানান যে ভুক্তভোগীদের বেশিরভাগই লিভার ইনফেকশন এবং শ্বাসকষ্টে ভুগছেন।

কে/ডি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়