Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

যুক্তরাষ্ট্র-জার্মানিসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে তুরস্কের তিরস্কার

যুক্তরাষ্ট্র-জার্মানিসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে তুরস্কের তিরস্কার
যুক্তরাষ্ট্র-জার্মানিসহ ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতকে তুরস্কের তিরস্কার, ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, কানাডাসহ ১০টি দেশের রাষ্ট্রদূতকে তিরস্কার করেছে তুরস্ক। তুর্কি সমাজকর্মী ওসমান কাভালার মুক্তি দাবি করে যৌথ বিবৃতি দিয়েছিল এই ১০টি দেশ। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) তাদের ডেকে পাঠিয়ে কঠোর ভাষায় তিরস্কার করে দেশটি।

সমাজকর্মী ওসমান কাভালা ২০১৭ সালের অক্টোবর থেকে বন্দি রয়েছেন। ২০১৩ সালের সরকারবিরোধী বিক্ষোভে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে বন্দি করা হয়েছিল। দাবি করা হয়, ২০১৬ সালে ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানেও তার সমর্থন ছিল। এক মার্কিন ধনকুবেরের যোগসাজশে কাভালা রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে অংশ নিয়েছিলেন।

গত সোমবার (১৮ অক্টোবর) যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে ও সুইডেনের রাষ্ট্রদূতরা কাভালার মামলায় ‘দ্রুত ন্যায়বিচার’-এর দাবি জানিয়ে যৌথ বিবৃতি জারি করে।

বিবৃতিতে বলা হয়, কাভালার বিচারপ্রক্রিয়া ইচ্ছা করে বিলম্বিত করা হচ্ছে। এর ফলে তুরস্কের বিচারব্যবস্থার স্বচ্ছতা, গণতন্ত্র এবং আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীলতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

রাষ্ট্রদূতদের পক্ষ থেকে তুরস্ককে বলা হয়েছে, কাউন্সিল অব ইউরোপের রায় যেন তারা মেনে নেয়। কাউন্সিল অব ইউরোপ বলেছে, কাভালাকে তাদের ৩০ নভেম্বরের বৈঠকের আগে মুক্তি না দিলে তারা তুরস্কের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ তুলবে এবং ব্যবস্থা নেবে। ১৯৫০ সাল থেকে এই মানবাধিকার সংগঠনটির সদস্য তুরস্ক।

এ ব্যাপারে তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, চলমান কোনো মামলার বিষয়ে রাষ্ট্রদূতরা সুপারিশ করবেন, এটি মেনে নেওয়া যায় না। টুইটারের এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘যে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, তাতে আপনারা গণতন্ত্র ও আইন কতটা বোঝেন তা নিয়ে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।’

মঙ্গলবার আঙ্কারায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রায় ২০ মিনিট ধরে তুর্কি কর্মকর্তাদের তিরস্কার শোনেন ১০ দেশের রাষ্ট্রদূতেরা।

বৈঠক শেষে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, কূটনীতিকরা কাভালার মুক্তি দাবি করে বিবৃতি দিয়ে গ্রহণযোগ্য কূটনৈতিক আচরণের সীমা লঙ্ঘন করেছেন। এই বিবৃতি আইনি প্রক্রিয়াকে রাজনৈতিক করার এবং তুর্কি বিচার বিভাগ, আইনের শাসন এবং গণতন্ত্রকে চাপে ফেলার প্রচেষ্টা। সূত্র : আল জাজিরা

ডব্লিউএস/পি

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS