Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ০৫ জুন ২০২১, ১৭:০৫
আপডেট : ০৫ জুন ২০২১, ১৭:৫০

সাগরে ১০০ দিন ভাসার পর ইন্দোনেশিয়ার নির্জন দ্বীপে ৮১ রোহিঙ্গা

সাগরে ১০০ দিন ভাসার পর ইন্দোনেশিয়ার নির্জন দ্বীপে পৌঁছাল ৮১ রোহিঙ্গা
ইন্দোনেশিয়ার নির্জন দ্বীপে পৌঁছাল রোহিঙ্গারা

সাগরে ১০০ দিন ভাসার পর ইন্দোনেশিয়ার নির্জন একটি দ্বীপে পৌঁছেছে ৮১ রোহিঙ্গাকে বহনকারী একটি নৌকা। শুক্রবার দেশটির আচেহ প্রদেশের ইদমান দ্বীপে ছোট কাঠের নৌকাটির সন্ধান পাওয়া যায় বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, মালয়েশিয়ায় যাওয়ার আশায় চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার থেকে নৌকায় চড়ে রওনা দেয় ৯০ রোহিঙ্গার দলটি। চার দিন পর নৌকাটির ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে গিয়েছিল। ওই অবস্থায় প্রায় দুই সপ্তাহ খাবার ও বিশুদ্ধ পানি ছাড়াই সাগরে ভেসে ছিল আরোহীরা। তাদের বেশির ভাগই নারী ও শিশু।

মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ায় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের শিক্ষা-মানসিক সহায়তাদানকারী প্রতিষ্ঠান রিমা পুত্র শাহ জানিয়েছেন, লোকসিউমাউই শহর থেকে দুই ঘণ্টা সময় লাগে দ্বীপটিতে যেতে। এটি জেলেরা বিশ্রামের স্থান হিসেবে ব্যবহার করে।

তিনি বলেন, আমাদের মাঠপর্যায়ের কর্মীরা শরণার্থীদের সঙ্গে দেখা করেছে। প্রায় ৪ মাস ধরে সাগরে ভেসে বেড়ানোর কথা জানিয়েছে তারা। ভারত থেকে তারা ১০০ আসনের দুই ইঞ্জিনের একটি নৌকায় ছিল।

আল-জাজিরা জানিয়েছে, বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় উপকূলে গিয়েছিল তারা। সেখানে তাদের নৌকাটি ভেঙে যায়। ভারতীয় কোস্টগার্ড তাদের নৌকা মেরামত করে দেয় এবং খাদ্য ও পানি দেয়। তবে রোহিঙ্গাদের ভারতের স্থলভাগে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। নৌকাটিতে ৯০ জন রোহিঙ্গা শরণার্থী ছিল। ভারতীয় কোস্টগার্ড নৌকা থেকে ৯টি মৃতদেহ উদ্ধার করে। বাংলাদেশ থেকে রওনা হওয়ার পর নৌকাতেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

আচেহ প্রদেশ ঐতিহাসিকভাবেই রোহিঙ্গা মুসলমানদের প্রতি সমর্থক। এই প্রদেশটি ইসলামি শরিয়াহ আইন প্রতিপালন করে। গত বছরের জুন ও সেপ্টেম্বরে এখানে দুটি নৌকায় করে ১০০ ও ৩০০ রোহিঙ্গা শরণার্থী ভেসে আসে। তাদেরকে কর্তৃপক্ষ আশ্রয় দিয়েছিল।

এমআই

RTV Drama
RTVPLUS