logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭

ইরান নিয়ে প্রথম পরীক্ষায় বাইডেন

first serious test of Joe Biden’s policy towards Iran
সংগৃহীত

ইরাকে কুর্দি অঞ্চলে মার্কিন একটি বিমানঘাঁটিতে এক ডজনের বেশি রকেট হামলায় একজন বেসামরিক কন্ট্রাক্টর নিহত এবং নয়জন আহত হয়েছে। এমতাবস্থায় নতুন করে উত্তেজনা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে বলা হচ্ছে, ক্ষমতায় বসার পর নিজের ইরান নীতি নিয়ে প্রথম গুরুতর পরীক্ষা সম্মুখীন হলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ওই অঞ্চলের প্রধান শহর ইরবিলে সোমবার ওই বিমানঘাঁটিতে প্রায় ১৪টি রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা স্থানীয় টেলিভিশনকে জানিয়েছে, ওই রকেটগুলো এরবিলের দক্ষিণ দিকে থেকে ছোড়া হয়েছে।

মার্কিন জোট বাহিনীর একজন মুখপাত্র বলেছেন, তিনটি ১০৭ এমএম রকেট ঘাঁটিতে আঘাত করে। আর বাকিগুলো পার্শ্ববর্তী আবাসিক এলাকায় আঘাত করে। এসব হামলায় একজন বিদেশি নাগরিক নিহত হয়েছেন। তবে তিনি মার্কিন নাগরিক নন। একজন মার্কিন সেনা আহত হয়েছে। আর অন্তত পাঁচজন ইরাকি বেসামরিক নাগরিক আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কা।

গত এক বছরের মধ্যে ইরাকে মোতায়েন থাকার মার্কিন সেনাবাহিনীর ওপর এটাই সবচেয়ে প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা। ওই অঞ্চলে মার্কিন বাহিনী ও তাদের ইরাকি ও কুর্দি মিত্রদের সঙ্গে ইরানের সমর্থনপুষ্ট মিলিশিয়া বাহিনীগুলোর উত্তেজনা দিন দিন বেড়েই চলেছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় সেটা সর্বোচ্চ পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছিল।

ইরবিল কুর্দিদের রাজধানী হিসেবে পরিচিত। এই শহরে সাধারণত এ ধরনের হামলা হয় না। তবে সোমবারের এই হামলার দায় স্বীকার করেছে খুবই অল্প পরিচিত ‘আওলিয়া আল-দাম’ নামের শিয়া মিলিশিয়া গোষ্ঠী। তাদের দাবি, ইরাকে ‘যুক্তরাষ্ট্রের দখলদারিত্বের’ ওপর এই হামলা চালানো হয়েছে।

এদিকে এই হামলার পর তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন বলেছেন, রকেট হামলার ঘটনায় আমরা খুব ক্ষুব্ধ। এসময় তিনি হামলার সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও হুমকি দেন।

RTV Drama
RTVPLUS