logo
  • ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

নির্বাচনের আগে ট্রাম্পের বড় জয়

Trump wins in the Supreme Court before the election
সংগৃহীত
আগামী ৩ নভেম্বর মার্কিন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তখন জানা যাবে বিজয়ের মালা কার গলায় শোভা পায়। তবে নির্বাচনের আগে বড় একটা জয় তুলে নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। সুপ্রিম কোর্টে নিয়োগ পেয়েছেন ট্রাম্পের প্রার্থী বিচারপতি অ্যামি কোনে ব্যারট।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের এক সপ্তাহ আগে সিনেটে ৫২-৪৮ ভোটে জিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেলেন ব্যারট। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এ ঘটনা নজিরবিহীন। নির্বাচনের আগে ব্যারটের এই নিয়োগ ট্রাম্পের বড় জয় বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অনেকেই মনে করেছিলেন, নির্বাচনের আগে হয়ত সুপ্রিম কোর্টের এই নিয়োগ করাতে পারবেন না ট্রাম্প। তবে ট্রাম্প ঠিকই তা করে দেখালেন। ব্যারট নিয়োগ পাওয়ায় সুপ্রিম কোর্টের ৯ সদস্যের বেঞ্চে ছয়জন কনজারভেটিভ বিচারপতি জায়গা পেলেন। আগামী দিনে যেকোনো রায়ের ক্ষেত্রে এই সংখ্যা গুরুত্বপূর্ণ হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে সুপ্রিম কোর্টের গুরুত্বপূর্ণ পদে এমন নিয়োগ হওয়া উচিত কিনা যুক্তরাষ্ট্রে দীর্ঘদিন ধরেই এ নিয়ে তীব্র বিতর্ক চলছিল। ডেমোক্র্যাটরা এই বিষয়টি নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে প্রচার চালাচ্ছিল। তাদের বক্তব্য, সুপ্রিমকোর্ট দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

সেখানে বিচারপতি নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্টের হাত থাকে। প্রেসিডেন্ট বিচারপতি মনোনীত করেন। ফলে এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মুখে হওয়া অনুচিত। ডেমোক্র্যাটদের বক্তব্য, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় নাও ফিরতে পারেন। নতুন প্রেসিডেন্ট চার বছরের জন্য ক্ষমতায় আসতে পারেন। বিচারপতি মনোনয়নের সুযোগ তার পাওয়া উচিত।

রিপাবলিকানরা অবশ্য ভিন্ন যুক্তি দিয়েছে। তাদের বক্তব্য, ক্ষমতায় ডেমোক্র্যাটরা থাকলে উল্টো কথা বলতো তারা। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সঙ্গে সুপ্রিম কোর্টে বিচারপতি নিয়োগের কোনও সম্পর্ক নেই বলেও যুক্তি দেখিয়েছে রিপাবলিকানরা। কারণ সিনেটের মাধ্যমেই বিচারপতির নিয়োগ হয়। সেখানে সিনেটররা ভোট দেন। সেই ভোটে জিতেছেন বলেই ট্রাম্প মনোনীত প্রার্থী ব্যারট সুপ্রিম কোর্টে নিয়োগ পেয়েছেন।

সোমবার রাতে সিনেটের ভোটাভুটিতে ৫২-৪৮ ব্যবধানে জিতেছেন ব্যারট। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগে হলে এই ভোটে সুপ্রিম কোর্টে নিয়োগ পেতেন না ব্যারট। কারণ জেতার জন্য তার অন্তত ৬০টি ভোট লাগতো। তবে কিছুদিন আগেই সংবিধান সংশোধন করে সে নিয়ম বদলানো হয়েছে। তারই সুযোগ পেয়েছেন ব্যারট।

স্বাভাবিকভাবেই ব্যারটের এই জয়ে উচ্ছাস প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, এই ঘটনা প্রমাণ করে যুক্তরাষ্ট্রে এখনও নিরপেক্ষ আইনের শাসন কায়েম আছে। রাতেই ব্যারটের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন ট্রাম্প। তবে মঙ্গলবার সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছে শপথ নেবেন ব্যারট।

এদিকে আগামী দিনে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় দিতে পারেন ব্যারট বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এর মধ্যে রয়েছে গর্ভপাতের মতো বিষয়ও। কয়েক দশক আগে যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের পক্ষে রায় দিয়েছিল সুপ্রিমকোর্ট। সেই রায়কে ওভার রুল করতে পারেন কনজারভেটিভ ব্যারট।

RTVPLUS