• ঢাকা শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৬

শাক-সবজি হাতের নাগালে

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫৪ | আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৪২
রাজধানীতে কয়েক সপ্তাহ ধরে শীতকালীন শাকসবজি আসতে শুরু করেছে। শুরুর দিকে বাজারে শাক-সবজির দাম চড়া থাকলেও এখন দাম হাতের নাগালে রয়েছে। বিক্রেতারা বলছেন, শীতের এই পুরো সময়ে তরিতরকারির সরবরাহ ঠিক থাকলে বাকি সময়টাও দাম সাধ্যের মধ্যে থাকবে।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, হাতিরপুল বাজার ও কাঁঠালবাগান বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ফুলকপি ও বাঁধাকপি ১৫-২০ টাকা, নতুন আলু ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, গাজর ২৫-৩০ টাকা, শিম ২০-২৫ টাকা, কাঁচা টমেটো ৩০ থেকে ৩৫, পাকা টমেটো ৫০ থেকে ৬০ টাকা, মুলা ১৫-২০ টাকা, চিচিঙ্গা ২৫-৩০ টাকা, বরবটি ৩০-৩৫ টাকা, লাউ আকার ভেদে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, বেগুন ২০-২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পালং শাক প্রতি আঁটি ১০ টাকা, লাল শাক পাঁচ টাকা, লাউ শাক ১৫ টাকা, কচু শাক ১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

western কারওয়ান বাজারের সবজি বিক্রেতা জামিল হোসেন বলেন, সবজির দাম কমে আসছে। সরবরাহ বেশি থাকার কারণে দাম কমতে শুরু করেছে। এভাবে সরবরাহ থাকলে মৌসুম জুড়ে আরও কম খাওয়ানো যাবে।

ফার্মগেটের বাসিন্দা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সুস্মিতা চৌধুরী সবজি কিনছিলেন। তিনি বলেন, শীতের শুরুর দিকে যেমন সব সবজির দামই অনেক বেশি ছিল, তবে এখন তা নেই। হাতের নাগালেই আছে।

সবজির বিক্রেতারা জানিয়েছেন, বাজারে এখন সবচেয়ে বেশি চাহিদা হচ্ছে শীতের শাকসবজির। এ জন্য তারা বেশি বেশি করে এসব শাকসবজি দোকানে রাখছেন।

এছাড়া ধনেপাতা বিক্রি হতে দেখা গেছে ৮০ টাকা কেজি দরে। একইভাবে কমেছে মরিচের দাম। শীতে দেশের বিভিন্ন স্থানে মরিচের আবাদ হয়। এক সপ্তাহ আগেও যে মরিচ ছিল ৬০ টাকা কেজি, তা বিক্রি হয়েছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজিতে। দাম অপরিবর্তিত থাকা দেশি পেঁয়াজের কেজি মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়। আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি। আর বাজারে নতুন আসা দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৫ থেকে ৩০ টাকায়।

অপরিবর্তিত রয়েছে বয়লার মুরগি, ডিম, গরু ও খাসির মাংসের দাম। ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি, পাকিস্তানি ২২০ এবং দেশি মুরগি ৩৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গরুর মাংস ৪৮০, খাসি সাড়ে ৭শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে বাজারে সবজির দাম বেশি হলেও মাছের দাম বাড়তি দেখা গেছে। মাছ ব্যবসায়ীরা বলছেন, সরবরাহ কমেছে গেল সপ্তাহের তুলনায়। ফলে দাম একটু বাড়তি। দেখা যায়, বড় ইলিশ কেজি ১৪শ থেকে দু’হাজার টাকা কেজি আর হালি সাড়ে ৬ থেকে ৭ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা, রুই-কতলা এবং টেংড়া, পাবদা, মলা ও বাতাসিসহ সব ধরনের ছোট মাছের কেজিতে ৬০ থেকে ৭০ টাকা বাড়তে দেখা যায়।

এমসি/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়