logo
  • ঢাকা বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

দেশীয় পদ্ধতিতে কুরবানির পশু মোটাতাজা করায় ব্যস্ত খামারিরা

ভৈরব প্রতিনিধি
|  ২১ জুলাই ২০১৯, ১৬:৪২ | আপডেট : ২১ জুলাই ২০১৯, ১৭:০৮
গরু, খামারি, মোটাতাজা
ভৈরবে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গরু মোটাতাজাকরণে ব্যস্ত খামারি
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে কুরবানি ঈদকে সামনে রেখে গবাদি পশু মোটাতাজা করায় ব্যস্ত খামারিরা। বুকভরা আশা নিয়ে তারা দিন গুনছেন কখন জমে উঠবে পশুর হাট। গেল বছর শেষের দিকে দাম পড়ে যাওয়ায় অনেক খামারি লোকসানের মুখে পড়েন। এ বছর যদি বাজারে ভারতীয় পশুর আমদানি না হয় তাহলে গেল বারের লোকসান পুষিয়ে অনেক লাভবান হবেন তারা।

bestelectronics
জানা গেছে, পৌর শহরের চণ্ডিবের মধ্যপাড়ার বাসিন্দা বিলকিস বেগম। ছয় বছর আগে মাত্র একটি গাভী দিয়ে শুরু করেন গবাদি পশু লালন-পালন। বর্তমানে বিলকিস বেগমের গোয়ালে ১২টি পশু রয়েছে। তিনি চারটি ষাঁড় ও আটটি গাভী লালন-পালন করছেন। মাত্র কয়েক বছরের ব্যবধানে তিনি এখন প্রান্তিক পর্যায়ের খামারি।

কুরবানির ঈদকে সামনে রেখে দেশীয় পদ্ধতিতে গবাদি পশু মোটাতাজা করায় ব্যস্ত সময় পাড় করছেন বিলকিস। সবুজ ঘাস, খড়, কুড়া, কৈল ও ভুষির মাধ্যমে পশু মোটাতাজা করছেন তিনি।

বিলকিস বেগমের মতো কমলপুর এলাকার শাহাদাত, আরিফুল ইসলাম, জুয়েল মিয়াসহ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ছোট-বড় খামারে চলছে দেশীয় ও শংকর জাতের পশু লালন-পালন।

শুধু প্রান্তিক পর্যায়ে নয়, শহরের নিউটাউনে বড় আকারে রুজেন ডেইরি ফার্মেও চলছে প্রাকৃতিক উপায়ে গরু মোটাতাজাকরণ। ফলে আগের তুলনায় যেকোনো ধরনের রোগ বালাইয়ে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও কমে এসেছে।

খামারিরা জানান, বাজারে গো-খাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় তাদের পশু মোটাতাজাকরণে অনেকাংশে ব্যয় বেড়েছে। যদি দেশে ভারতীয় পশু আমদানি না হয়, তাহলে অনেকেই গেল বছরের লোকসান পুষিয়ে অধিক লাভবান হবেন।

চণ্ডিবের গ্রামের মাসুম নামের এক খামারি অভিযোগ করে বলেন, হঠাৎ করে পশু অসুখ-বিসুখে পড়লে সরকারি পশু চিকিৎসকদের সহায়তা পেতে বিলম্ব হয়। আবার সহযোগিতা পেলেও অতিরিক্ত টাকা গুনতে হয়। খামারিদের দাবি সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণ পেলে এবং সরকারের বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা পেলে আরও এলাকায় আরও অনেকেই পশু পালনে আগ্রহী হয়ে উঠতেন।

ভৈরব উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম আরটিভি অনলাইনকে বলেন, এ বছর উপজেলায় পশুর চাহিদা মেটাতে প্রায় তিন হাজার খামারি ১০ হাজারের বেশি গবাদি পশু লালন-পালন করছেন। এছাড়া কোনও খামারি যেন স্টেরয়েড জাতীয় ট্যাবলেট বা ইনজেকসন ব্যবহার করতে না পারেন সেজন্য নজরদারি রাখা হচ্ছে।   

জেবি/পি

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়