• ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

পারিবারিক কলহে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

নড়াইল প্রতিনিধি
|  ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:১১ | আপডেট : ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:২৪
নড়াইল পৌরসভার বেনাডোব গ্রামে দুই সন্তানের জননীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

whirpool
বুধবার দিবাগত গভীর রাতে এই ঘটনা ঘটে। নিহত নারীর নাম শম্পা বেগম (২৬)। তিনি ওই গ্রামের মুসাম শেখের স্ত্রী।

বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, লোহাগড়া উপজেলার নলদী ইউনিয়নের ব্রহ্মণীনগর গ্রামের ফসিয়ার মোল্যার মেয়ে শম্পার সঙ্গে  আট বছর আগে নড়াইল পৌরসভার বেনাডোব এলাকার আফসার শেখের ছেলে মুসাম শেখের বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের দুটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বড় মেয়ে ফাহিমার বয়স চার বছর এবং ছোট মেয়ে মাহিয়ার বয়স দেড় বছর।

শম্পার ভাই মনির মোল্যা আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বুধবার  রাত  একটার দিকে মোবাইল ফোন করে আমাদের জানানো হয় শম্পা মারা গেছে। খবর পেয়ে আমরা শম্পার স্বামীর বাড়ি ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে শুনি শম্পা রাত ১০টার দিকে মারা গেছে। শম্পার কান দিয়ে রক্ত ঝরছিল। গলায় দাগ দেখে আমাদের সন্দেহ হয় তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

অভিযুক্ত স্বামী মুসামের চাচা মুক্তার  শেখ আরটিভি অনলাইনকে বলেন, মুসাম রূপগঞ্জ বাজারে একটি পোল্ট্রির দোকানে কাজ করে। রাতে বাড়িতে ফিরে দেখতে পায় বসন্ত রোগে আক্রান্ত তার ছোট মেয়েকে ডাল দিয়ে ভাত খাওয়াচ্ছে শম্পা। এ সময় রাগারাগি করে তার স্ত্রীকে মরতে বলে। এতে  অভিমান করে রাতেই শম্পা বাড়ির পাশে লিচু গাছের ডালের সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

নড়াইল সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) কাজী বাবুল হোসেন আরটিভি অনলাইনকে বলেন, রাতে খবর শোনার পর ঘটনাস্থলে যাই। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য আজ সকালে নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে এ ব্যাপারে সদর থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

জেবি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়