• ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

নানা আয়োজনে চলছে সারা দেশে বর্ষবরণ উৎসব

আরটিভি অনলাইন
|  ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১০:৪৯ | আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:১৬
না আয়োজনের মধ্য দিয়ে সারা দেশে উদযাপিত হলো পহেলা বৈশাখ। দিনটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করে। পান্তা-ইলিশ, বৈশাখী মেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। 

whirpool
আরটিভি অনলাইনের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

সাতক্ষীরা
সাতক্ষীরায় বর্ণিল আয়োজনে উৎসব মুখর পরিবেশে পালিত হচ্ছে  পহেলা বৈশাখ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে গ্রহণ করা হয়েছে দুই দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য কর্মসূচি।  

রোববার সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে একটি বর্ণাঢ্য বৈশাখী মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়। এ শোভাযাত্রা বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বাঙালিয়ানা সাজ ও হারিয়ে যাওয়া গ্রামীণ লোকজ ঐতিহ্য নিয়ে বিভিন্ন সংগঠন অংশ নেয়। মঙ্গল শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সাতক্ষীরা শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে বৈশাখী মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মিলিত হয়। 

বিকেলে পৌর দিঘীতে হাঁস ধরা, সাঁতার প্রতিযোগিতা, শহিদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে হাডুডু খেলা, লাঠিখেলা, মোরগ লড়াই, সঙ্গীত প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।  সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হবে শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে অনুষ্ঠিত বৈশাখী মেলায়।

বরিশাল 

সূচনা সঙ্গীত, ঢাকের শব্দ, মুক্তিযোদ্ধা ও গুণীজন সম্মাননা এবং রাখি পড়িয়ে বরিশালে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে নববর্ষ ১৪২৬ উদযাপিত হচ্ছে। জেলা প্রশাসন, চারুকলা বরিশাল, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী, শব্দাবলী গ্রুপ থিয়েটার, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, ব্রজমোহন কলেজসহ নানা সাংস্কৃতিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পৃথকভাবে বর্ষবরণের উৎসব উদযাপন করছে।

নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যান থেকে সকাল সাড়ে সাতটায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর সকাল ৮টায় অশ্বিনী কুমার হল চত্বর থেকে চারুকলা বরিশাল, বিএম স্কুল থেকে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী নানা প্রতিকৃতি নিয়ে আবহমান বাংলার চিরায়ত রূপ তুলে ধরে বের করা মঙ্গল শোভাযাত্রা নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। 

বরিশালে বর্ষবরণ উপলক্ষে তিন দিনব্যাপী মেলা ও নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলবে।

নেত্রকোনা
নানা আয়োজনে নেত্রকোনার কেন্দুয়াসহ পাঁচটি উপজেলায় বাংলা নববর্ষ উদযাপিত হচ্ছে।

সোমবার সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে কেন্দুয়া উপজেলা প্রশাসন বর্ষবরণ আয়োজিত পরিষদ প্রাঙ্গণ মঞ্চে বর্ষবরণের গান শুরু হয়। স্থানীয় শিল্পীরা এসময় তবলার লহরী, নৃত্য, সংগীত পরিবেশন করে।

পরে বের হয় বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা। এছাড়াও অন্য উপজেলাগুলোতে শুরু হয়েছে বর্ষবরণ ও বৈশাখী মেলা ।

ঝিনাইদহ
বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নিচ্ছে ঝিনাইদহবাসী। এ উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে আজ সকালে শহরের ওয়াজির আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। এতে পেঁচা, বাঘের মুখোশ, গরুর গাড়ি, পালকিসহ গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য নিয়ে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেয়।

এছাড়াও পান্তা পরিবেশন, লাঠি খেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে জেলার বিভিন্ন স্থানে বাংলা বর্ষবরণ পালিত হচ্ছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উৎসবমুখর পরিবেশে পহেলা বৈশাখ পালিত হয়েছে। দিনটি উদযাপনে আজ রোববার সকালে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে লোকনাথ দিঘীর টেংকের পাড় থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ফারুকী পার্ক সংলগ্ন ডিসি মেলা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। 

এছাড়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচী পালিত হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। 

সিরাজগঞ্জ

বর্ণাঢ্য নানা আয়োজনে সিরাজগঞ্জে বাংলা নববর্ষ পালিত হচ্ছে। সকালে জেলা প্রশাসকের আয়োজনে মুক্তির সোপান থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না। 

শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ এম মনসুর আলী অডিটোরিয়ামে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন। এছাড়া সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, উদীচী, রবীন্দ্র সম্মিলন পরিষদ, অরুনিমা সংগীতালয়সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পৃথক পৃথকভাবে কর্মসূচী পালন করেছে।

নাটোর

মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে নাটোরে উদযাপন করা হচ্ছে বাংলা নববর্ষ। সকালে শহরের কানাইখালী মাঠ থেকে বের করা হয় গ্রাম বাংলার নানা ঐতিহ্যের স্মারক সম্বলিত মঙ্গল শোভাযাত্রা। 

এতে অংশ নেন সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুল, জেলা প্রশাসক মোহম্মদ শাহরিয়াজ, পৌর মেয়র উমা চৌধুরীসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষ। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঘুরে রানীভবানী রাজবাড়ি প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়।

হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষকে বরণ করা হচ্ছে। রোববার ভোরে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে খেলাঘর আসরের আয়োজনে শিরিষ তলায় নববর্ষের সূর্যকে বরণ করা হয়। এরপর মুড়ির মুয়া, খই, নাড়ু বিতরণ করা হয়। পরিবেশন করা হয় নৃত্য ও বাঙালির ঐতিহ্যবাহী গান।   

এরপর সকাল সাড়ে ৯টায় জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরে মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভা যাত্রায় হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি আবু জাহির, জেলা প্রশাসক মাহমুদল কবির মুরাদ, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যাসহ সমাজের সর্বস্তরের লোকজন অংশগ্রহণ করেন।

এছাড়া হবিগঞ্জের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বৃন্দাবন সরকারী কলেজ, মহিলা সরকারী কলেজ, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়সহ বিভিন্ন স্থানে বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়েছে। 

নড়াইল 

বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ বরণ করতে নড়াইলে সকাল ৬টা থেকে  নানা কর্মসূচী পালিত হয়েছে। সকাল ৬টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমির নজরুল মঞ্চে শুরু হয় বর্ষবরণের গান। এরপর ভিক্টোরিয়া কলেজের সুলতান মঞ্চে মঙ্গল প্রদীপ জ্বালিয়ে নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়ে বৈশাখের গান আয়োজন করা হয়। 

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে এখান থেকে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়। মঙ্গল শোভাযাত্রায় কয়েক হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করে। চার কিলোমিটার দীর্ঘ মঙ্গল শোভাযাত্রা পুরাতন বাস টার্মিনালের কাছে আসলে নড়াইল শিল্পকলা একাডেমির শোভাযাত্রার সঙ্গে মিলিত হয়ে জেলা শিল্পকলা বটমূলে এসে শেষ হয়।

ফরিদপুর

দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে বাংলা নববর্ষকে বরণ করছে ফরিদপুরবাসী। এ উপলক্ষে আজ ভোর সাড়ে ছয়টায় ফরিদপুর কোর্ট চত্বরে বর্ষবরণের আয়োজন করে ফরিদপুর সাহিত্য সাংস্কৃতিক পরিষদ। এতে অংশগ্রহণ করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এমপি।

সকাল সাড়ে ৮টায় জেলা প্রশাসনে আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয় শহরে। র‌্যালিতে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেন। পরে ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ ক্যাম্পাসে বাংলা বর্ষবরণকে কেন্দ্র করে আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

অনুষ্ঠান শেষে বাংলার ঐতিহ্যবাহী দেশীয় বিভিন্ন ধরনের খেলা হাডুডু, লাঠি খেলা ও সাপ খেলাসহ বিভিন্ন ধরনের খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

হাতিয়া

বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উপলক্ষে হাতিয়া উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে বরাবরের মতো এবারও মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়।  নানা রঙ্গের মুখোশ, ঢাক-ঢোল, কোলা ইত্যাদি নিয়ে শোভাযাত্রা শুরু হয়। পাঞ্জাবি, ধুতি, লুঙ্গি, গামছাসহ পোশাকেও ছিল বাঙালি সংস্কৃতির ছোঁয়া।

মঙ্গল শোভাযাত্রায় হাতিয়া প্রেস ক্লাব, হাতিয়া টাউন হল ক্লাব, বঙ্গবন্ধু শিল্পগোষ্ঠী, হাতিয়া সাহিত্য পরিষদ, মৃত্তিকা নাট্যদল, শিল্পকলা একাডেমি, এনজিও হাতিয়াসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে। শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা পরিষদের আয়োজনে পান্তা ভাত খাওয়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এসময় হাতিয়ার গ্রামীণ সংস্কৃতির বিভিন্ন ঐতিহ্য উপস্থাপন করা হয়। 

শোভাযাত্রাটি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে শুরু হয়ে উপজেলার মূল সড়ক দিয়ে বিভিন্ন স্থান প্রদক্ষিণ করে পুনরায় উপজেলা পরিষদের সামনে গিয়ে শেষ হয়। 

কুমিল্লা

কুমিল্লায় বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষ- ১৪২৬ উদযাপিত হচ্ছে। সকালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শাখা থেকে একটি মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কুমিল্লা নগর উদ্যানের বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে গিয়ে শেষ হয়। 

মঙ্গল শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। এতে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, উন্নয়ন সংস্থা, সামাজিক সংগঠনসহ সাধারণ মানুষ অংশ নেয়। 

নববর্ষ উপলক্ষে জেলা প্রশাসন কর্মসূচির গ্রহণ করেছে। এর মধ্যে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, ঘুড়ি উৎসব-ঘোড় দৌড় ও শিশুদের আনন্দ মেলা রয়েছে। 

এছাড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট নগর উদ্যানের জামতলায় বিভিন্ন অনুষ্ঠান পালন করছে। 

বান্দরবান

মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে পাহাড়ি-বাঙালির সম্বলিত অংশগ্রহণে বান্দরবানে বাংলা নববর্ষকে বরণ উৎসব পালিত হয়েছে। আজ রোববার সকাল ৮টায় রাজার মাঠ থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করে জেলা শহরের প্রধান প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। 

শোভাযাত্রায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের তরুণ-তরুণীরা নিজস্ব ঐতিহ্যের পোশাকে নেচে-গেয়ে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। তাদের বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রের সুর-মূর্ছনা ও সাংস্কৃতিক ভাবধারা প্রদর্শনের মাধ্যমে নিজস্ব ঐতিহ্যকে তুলে ধরে। মারমা, চাকমা, বম, লুসাই, চাক ও খুমীসহ ১২টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারী-পুরুষ এ শোভাযাত্রায় অংশ নেয়।

বাগেরহাট
 ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে বাংলা নববর্ষকে বরণ করে নিয়েছে বাগেরহাটবাসী। নববর্ষ উপলক্ষে রোববার সকালে বাগেরহাট শেখ হেলাল উদ্দিন স্টেডিয়াম থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহরের জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে এসে শেষ হয়। 

শোভাযাত্রায় জেলা প্রশাসন, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ নানা শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেন। শহরের বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীরা নানান সাজে সেজে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করে।

রংপুর 

বিপুল উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিভাগীয় নগরী রংপুরে মঙ্গল শোভাযাত্রা, বৈশাখী গান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পান্তা উৎসব এর মধ্যে দিয়ে বাংলা নববর্ষ উদযাপন করা হচ্ছে। 
রংপুর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে বৈশাখী গানের মধ্যদিয়ে দিবসের সূচনা করা হয়। পরে জিলা স্কুল বটতলায় বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী।  শোভাযাত্রাটি জিলা স্কুল মোড় থেকে শুরু করে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় জিলা স্কুল মাঠে এসে শেষ হয়। 

শরীয়তপুর

আগামী সুন্দর স্বপ্নের প্রত্যয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে নানা আয়োজনে শরীয়তপুরে ১৪২৬ বাংলাবর্ষকে বরণ করা হয়েছে। রোববার সাড়ে ৮টায় শরীয়তপুর সদর উপজেলা চত্বর থেকে জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের এর নেতৃত্বে এক বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে বর্ষবরণের কর্মসূচি শুরু হয়। 

জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন বিভিন্ন বাঙ্গালি সংস্কৃতিকে ধারণ করে নানা সাজে মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি জেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শরীয়তপুর পৌরসভা মেলা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।  মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে ফিতা কেটে তিন দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার শুভ উদ্বোধন করা হয়।

পাবনা

পাবনায় নানা অনুষ্ঠান ও উৎসব আনন্দে বরণ করা হয়েছে বাংলা নববর্ষ- ১৪২৬। এ উপলক্ষে আজ রোববার সকালে জেলা প্রশাসন, স্কয়ার গ্রুপ, ইউনিভার্সাল গ্রুপসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানসহ বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে দৃষ্টিনন্দন বর্ণাঢ্য র‌্যালি প্রদর্শন করা হয়। 

পাবনা প্রেসক্লাবও বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরণ করে নতুন বাংলা বছরকে। সকাল সাতটায় শুভেচ্ছা বিনিময়, অতিথি আপ্যায়ন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। পরিবারের সদস্যসহ সাংবাদিকবৃন্দ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও সুধীজন অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

কিশোরগঞ্জ

ধর্মান্ধতা ও জঙ্গিবাদমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কিশোরগঞ্জে আজ রোববার উদযাপিত হচ্ছে বাংলা নববর্ষ-১৪২৬। মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ নানা আয়োজনে দিনটি উদযাপন করা হচ্ছে।

সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসন ও আমাদের কিশোরগঞ্জ এর উদ্যোগে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়। দিনব্যাপী অন্যান্য অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে সঙ্গীত, নৃত্য, লাঠি খেলাসহ নানা আয়োজন। 

নোয়াখালী

‘মুছে যাক গ্লানি, ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা’। নোয়াখালীতে নানা আয়োজনে উদযাপিত হচ্ছে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬। সকাল ৭টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণের মুক্তমঞ্চে বর্ষবরণের মধ্যদিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। এ উপলক্ষে সকাল ৮টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে এক বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শিল্পকলা একাডেমিতে এসে শেষ হয়।

এসএস

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়