• ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

চোখের সমস্যায় ভুগছেন ৭০ শতাংশ গণপরিবহন চালক

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৪৬ | আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:২২
গণপরিবহনের ৭০ দশমিক ৪ শতাংশ চালক দৃষ্টিশক্তিজনিত সমস্যায় ভুগছেন। এর মধ্যে ৭৩ দশমিক ৩ শতাংশ চালক উভয় চোখে সমস্যায় ভুগছেন। বাকি ১২ দশমিক ২২ শতাংশ ডান চোখ এবং ১৪ দশমিক ৪৯ শতাংশ চালক বাম চোখের সমস্যায় ভুগছেন।

whirpool
আজ শনিবার রাজধানীতে ‘আই কেয়ার প্রজেক্টে’র অন্তর্গত গণপরিবহন চালকদের চোখের স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে পরিচালিত জরিপের ফলাফল প্রকাশ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় মানবিক সাহায্য সংস্থা (এমএসএস)। জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করেন আই কেয়ার প্রজেক্টের উপদেষ্টা তারিকুল গণি। এসময় উপস্থিত ছিলেন এমএসএস চেয়ারম্যান ফিরোজ এম হাসান, সহকারী পরিচালক স্বপ্না রেজা প্রমুখ।

সংস্থাটি জানায়, গত ১ থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ঢাকার ৭টি বাস-ট্রাক টার্মিনালে ৫০০ জন গণপরিবহন চালকদের ওপর প্রাথমিকভাবে প্রশ্নের উত্তরের ভিত্তিতে এ জরিপটি করা হয়েছে। সেখানে ২০২ জন বাসচালক, ৪৭ মিনিবাসচালক, ১২০ লরিচালক এবং ১৩১ জন ছিলেন ট্রাকচালক। এদের মধ্যে ৪৩৭ জন আন্তঃজেলা রুটের ও ৬৩ জন মহানগর রুটের চালক। তাদের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর। আর এসব চালকদের কাজের অভিজ্ঞতা ১০ বছরের উপরে।

সংস্থাটি আরও জানায়, এ জরিপটি মূলত প্রশ্নের উত্তরের মাধ্যমে করা হয়েছে। কোনও বৈজ্ঞানিক টার্ম বা চক্ষু পরীক্ষা করে জরিপটি করা হয়নি। তবে আই কেয়ার প্রজেক্টের আওতায় চক্ষু চিকিৎসা বা পরীক্ষার মাধ্যমে জরিপের ফলাফল কমবেশি হতে পারে। যা ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারি প্রথম অবস্থায় রাজধানীর তেজগাঁওয়ের ট্রাকস্ট্যান্ডে চালকদের কমমূল্যে চোখের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে। পরে এ সেবা দেওয়া হবে সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে। আর এ সেবা এমএসএস’র সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালনা করবে আলবাসার ইন্টারন্যাশনাল ফাউন্ডেশন (আল-নূর এবং মক্কা আই হাসপাতাল)।

জরিপের ফলাফল উপস্থাপনকালে তারিকুল গণি বলেন, জরিপ করা ৫০০ জন চালকের চোখে সমস্যাজনিত ৩৫২ জন বা ৭০ দশমিক ৪ শতাংশ চালকের মধ্যে ৬২ জন বা ১৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ চালক পাওয়ারের চশমা ব্যবহার করেন। ২৭৭ জন বা ১২ দশমিক ২২ শতাংশ চালক কোনও ধরনের চশমা ব্যবহার করেন না। অতিরিক্ত ১৩ জন বা ৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ চালক শুধু সানগ্লাস ব্যবহার করেন।

তিনি আরও বলেন, ৩৫২ জন বা ৭০ দশমিক ৪ শতাংশ চালকের মধ্যে ২৬৫ জন বা ৭৫ দশমিক ৬ শতাংশ চালক বলেন তারা মোবাইল ফোন ব্যবহার ও পত্রিকা পড়তে সমস্যা হয়। আর ১০৯ জন বা ৩০ দশমিক ৯৭ শতাংশ চালক গাড়ি চালানোর সময় রোড সাইনবোর্ড ও দোকানের সাইনবোর্ড দেখে পড়তে সমস্যা হয়।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়