logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

ভবনের অভাবে বিদ্যালয়টিতে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত

শরীয়তপুর প্রতিনিধি
|  ৩০ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১৭ | আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:৩৪
শরীয়তপুর উপজেলার ৪৯ নাংলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভবন সংকটের কারণে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। আর ভবন না থাকার কারণে দুটি শ্রেণি কক্ষে গাদাগাদি করে পাঠদান করানো হচ্ছে। মানসম্মত পড়াশুনা না থাকার কারণে অভিভাবকরা ছাত্রছাত্রীদের অন্য স্কুলে নিয়ে যাচ্ছেন। এভাবে চলতে থাকলে স্কুলটি ছাত্র সংকটে পড়তে পারে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা।

bestelectronics
জানা গেছে এই প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৮৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর ২০১৩ সালে বিদ্যালয়টি সরকারি করা হলও এখনও পর্যন্ত কোনও পাকা ভবন নির্মাণ করা হয়নি।

দোচালা টিনের ঘরের মাত্র দুটি শ্রেণি কক্ষে ১২০ জন ছাত্র-ছাত্রীকে দুই শিফটে কোনোরকমে পাঠদান করা হচ্ছে। এতে শিক্ষার মান মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। একবছর আগে বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনটি ভেঙে নতুন ভবনের উদ্যোগ নেয়া হলেও তার কাজ শুরু হয়নি। এদিকে প্রয়োজনের তুলনায় চেয়ার, টেবিল ও বেঞ্চ কিছুই নেই বিদ্যালয়টিতে।  শিক্ষার্থীদের পোশাক-পরিচ্ছদও ময়লাযুক্ত। কাউকেই স্কুলড্রেস পরিহিত অবস্থায় দেখা যায়নি।

বিদ্যালয়টির পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুবর্ণা আক্তার জানায়, স্কুলটি ভাঙা থাকার কারণে বর্ষার দিনে আমরা ঠিকমতো ক্লাস করতে পারি না। বৃষ্টি এসে আমাদের বই ভিজিয়ে দেয়।

বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. লোকমান হোসেন আরটিভি অনলাইনকে বলেন, ভবনের অভাবে অনেক কষ্ট করে পাঠদান করছি। দ্রুত ভবন নির্মাণ করা হলে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হতো।

শিক্ষার্থীদের পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে শিকার করে ডামুড্যা উপজেলার সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে ভেঙে ফেলা হয়েছে। পার্শ্ববর্তী টিনের ঘরের দুটি কক্ষে পাঠদান করানো হচ্ছে। ছাত্রছাত্রীর তুলনায় পর্যাপ্ত শ্রেণি কক্ষ না থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। 

ডামুড্যা উপজেলা প্রকৌশলী এসএম হুসেইন ইবনে মিজান আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বিদ্যালয়টিতে ভবন নির্মাণের জন্য অনুমোদন চাওয়া হয়েছে। অনুমোদন আসলেই পুনরায় টেন্ডার করে ভবন নির্মাণের ব্যবস্থা করা হবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বিদ্যালয়টিতে ভবন নির্মাণের জন্য প্রকৌশল বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুতই ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হবে।

আরও পড়ুন
জেবি

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়