Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ

  ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:২৯
আপডেট : ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:১৮

সাবেক স্বামীর দেওয়া এসিডে ঝলসে গেল পোশাকশ্রমিকের মুখ

সাবেক স্বামীর দেওয়া এসিডে ঝলসে গেল পোশাকশ্রমিকের মুখ
ভুক্তভোগী নারী

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়নের ফেরাজীপাড়া গ্রামে সাবেক স্বামীর এসিড নিক্ষেপে ঝলসে গেছে সাথী আক্তার (১৯) নামের এক পোশাকশ্রমিকের মুখ।

শনিবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এর আগে শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) দিনগত রাতে ওই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় এসিডে সাথীর মুখ ও দুই হাত ঝলসে গেছে। পরে তাকে জেলা সদর হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্ত সাবেক স্বামী মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার বেতিলা গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে নাঈম।

জানা গেছে, ভুক্তভোগী সাথীর বাবা আবদুস সাত্তার একজন বাকপ্রতিবন্ধী। মা গৃহিণী। দুই বছর আগে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার বেতিলা গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে নাঈমের সঙ্গে বিয়ে হয় সাথীর। তবে বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ দিয়ে অত্যাচার করতেন নাঈম। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে বিয়েবিচ্ছেদ হয়। তবে তার সঙ্গে পুনরায় সংসার না করলে সাথীকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিলেন নাঈম।

এদিকে শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) রাতে প্রতিদিনের মতো সাথী তার ছোট বোনকে নিয়ে বাড়িতে ঘুমিয়েছিলেন। মধ্যরাতে ঘরের ভাঙা জানালা দিয়ে সাথীর শরীরে এসিড নিক্ষেপ করেন সাবেক স্বামী নাঈম। এ সময় দৌড়ে পালানোর সময় সাথীর ছোট বোন তাকে চিনে ফেলেন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় সাথীকে প্রথমে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়।

মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) কাজী এ কে এম রাসেল বলেন, দাহ্য পদার্থে সাথীর হাত-মুখ ঝলসে গেছে। তাকে সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এখানে তার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল ইসলাম জানান, ঘরের কাঁথা, বালিশ এসিডে পোড়ার আলামত পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সাবেক স্বামী নাঈমকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগীর মামা। আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জিএম/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS