Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

হাতিয়া প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:০২
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:১৮

চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত
দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী

নোয়াখালী হাতিয়ায় সুখচর ও নলচিরা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা সবাই মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বিকেল ৫টার আগেই।

এতে দুই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী ও সদস্য পদে সকল ওয়ার্ডে একক প্রার্থী হওয়ায় সবাই বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান দু’জনই আওয়ামী লীগ সমর্থিত। এরা হলেন সুখচর ইউনিয়নে মো. আলা উদ্দিন ও নলচিরা ইউনিয়নে মনছুর উল্যাহ।

চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের সবাই আওয়ামী লীগ সমর্থিত। তাই শেষ সময়ে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে সবাই প্রত্যাহার করে নেন বলে আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বখতিয়ার খিলজি মুজিব।

নলচিরা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের (ইউপি) সদস্যপ্রার্থী আকবর হোসেন আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, তিনিও মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তার নিকটতম আত্মীয় হওয়ায় সমঝোতার ভিত্তিতে তিনি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এভাবে দুই ইউনিয়নের ৯টি করে ১৮টি ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ৩টি করে ৬টি ওয়ার্ডের সবাই সমঝোতার ভিত্তিতে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বলে জানান প্রার্থীরা। সারাদেশের ন্যায় এই দুই ইউনিয়নেও বিএনপির কোনো প্রার্থী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেননি।

হাতিয়া নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন গত ৪ জানুয়ারি এই দুই ইউনিয়নের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী ১৬ জানুয়ারি ছিল মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন। ২৪ জানুয়ারি প্রার্থীদের মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি ছিল নির্বাচনের নির্ধারিত দিন।

এদিকে সুখচর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন দুইজন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৭ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ২৯ জন। নলচিরা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ১৭ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ৪৮ জন মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ জাকির হোসেন আরটিভি নিউজকে বলেন, দুই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে একজন করে, মহিলা সদস্য পদে একজন করে ও সাধারণ সদস্য পদে একজন করে প্রার্থী থাকায় সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) সকালে সবাইকে বিজয় হওয়ার লিখিত পত্র দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, সকাল থেকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা সবাই সশরীরে নির্বাচন অফিসে উপস্থিত হয়ে লিখিতভাবে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন। পরে এসব প্রত্যাহারের আবেদন জনসম্মুখে প্রকাশের জন্য নোটিশ বোর্ডে লাগিয়ে দেওয়া হয়।

হাতিয়া উপজেলার মূল ভূখণ্ডের উত্তর পাশে অবস্থিত এই দুই ইউনিয়ন। নদী ভাঙনের কারণে এই দুই ইউনিয়নের সীমানা ভেঙে একেবারে ছোট হয়ে গেছে। যার ফলে দীর্ঘদিন নির্বাচন বঞ্চিত ছিল এই দুই ইউনিয়নের জনগণ। সম্প্রতি চরকিং ইউনিয়ন থেকে কয়েকটি ওয়ার্ডকে নিয়ে সম্প্রসারণ করা হয় সুখচর ও নলচিরা ইউনিয়নকে। ইতোমধ্যে ওয়ার্ড বিভাজন ও ভোটার তালিকা পূর্ণগঠন করে তৈরি করা হয়। বর্তমানে সুখচর ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ৭ হাজার ৫৪৯। নলচিরা ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ৯ হাজার ৮৭০ জন।

হাতিয়া উপজেলায় ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে দ্বিতীয় ধাপে ৭ টি ইউনিয়নের নির্বাচন শেষ হয়েছে। এখন হচ্ছে দুই ইউনিয়নের নির্বাচন। এদিকে নদীর ওপারের হরনী ও চানন্দী ইউনিয়নের নির্বাচনে তফসিল এখনও ঘোষণা করা হয়নি।

এমআই/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS