Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

পাবনা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২:৫৭
আপডেট : ১৬ জানুয়ারি ২০২২, ২৩:২২

এসি কিনতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে করোনার টিকা বাবদ চাঁদা আদায়!

এসি কিনতে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে করোনার টিকা বাবদ চাঁদা আদায়!

এয়ার কন্ডিশনার (এসি) কেনার টাকা পরিশোধে কোভিড টিকা দিতে আসা শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে ফি আদায় করেছেন পাবনার ঢালারচর উচ্চবিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

জেলার বেড়া উপজেলার দুর্গম ঢালারচর ইউনিয়নের বিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষের এমন কাণ্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। সরকারের দেওয়া বিনামূল্যের করোনা টিকা প্রদানে ফি আদায়ের কোনো আইনগত সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

দেশব্যাপী মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীর করোনার টিকা প্রদান করছেন স্বাস্থ্য বিভাগ। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার সকাল থেকে ঢালারচর উচ্চবিদ্যালয়ে করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়। এ সময় প্রত্যেক শিক্ষার্থীর নিকট থেকে টিকা গ্রহণের জন্য টিকা ফি বাবদ ৬০ থেকে ১০০ টাকা আদায় করেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি নিয়ে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা ক্ষোভ প্রকাশ করলেও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ টাকা ছাড়া টিকা প্রদান করেননি বলে জানান একাধিক শিক্ষার্থীরা।

তারা আরও জানান, বিনামূল্যের টিকা দিতে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর নিকট থেকে করোনা টিকার ফি বাবদ ৬০ থেকে ১০০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। আমরা কয়েকজন বিষয়টির প্রতিবাদ করলে স্যার’রা ভয়ভীতিও দেখান। পরে বাধ্য হয়েই টাকা দিয়ে টিকা গ্রহণ করি।

ঢালারচর উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে প্রায় ১ হাজার ১০০ শিক্ষার্থী আছে। প্রত্যেকের কাশিনাথপুর বা বেড়া উপজেলা সদরে গিয়ে টিকা নিতে হলে কমপক্ষে ৩০০ টাকা করে খরচ হবে ও যাতায়াতে ঝুঁকিও রয়েছে। তাই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় লোকজনের সাথে পরামর্শ করেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকেও অবহিত করা হয়েছে। রোববার ৮৫৬ জন শিক্ষার্থীকে টিকা প্রদান সম্পন্ন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, টিকা কার্যক্রম পরিচালনায় এসি ক্রয় বাবদ এক লাখ ১২ হাজার টাকা খরচ হবে। এরমধ্যে ২৫ হাজার টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। বাকি টাকা শিক্ষার্থীদের নিকট থেকে আদায়কৃত টাকা দিয়ে পরিশোধ করা হবে।

বেড়া উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা খবির উদ্দিন বলেন, বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ টাকা আদায়ের বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্যই তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। উপজেলার আরও ৫টি বিদ্যালয়ে এভাবেই এসি ক্রয় করা হয়েছে। তবে এটি টিকা ফি নয় বলে তিনি দাবি করেন। তবে জেলা প্রশাসক ও শিক্ষা অধিদপ্তরের এ বিষয়ে অনুমোদন আছে কি না জানতে চাইলে তিনি সদুত্তর দিতে পারেননি।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জান্নাত বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগ টিকা প্রদানে কোনো প্রকার টাকা নিচ্ছেন না। বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কেন টাকা নিচ্ছেন বিষয়টি আমার জানা নেই।

এ বিষয়ে পাবনা জেলা প্রশাসক বিশ্বাস রাসেল হোসেন বলেন, এমন অভিযোগ আমি পাইনি, পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এসএস/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS