Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৫ মাঘ ১৪২৮
discover

কুমিল্লায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক

কুমিল্লায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আহতদের অবস্থা আশঙ্কাজনক
কুমিল্লায় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন, ছবি : প্রতিনিধি

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের মৌকারা ইউনিয়নের বেরুলিয়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের সংসার চলত বেলুন বানিয়ে সেগুলো বিক্রি করে। তবে হঠাৎ বিস্ফোরণে বেলুনের মতোই চুপসে গেল সব। বেলুন বানাতে গিয়ে নিজের হাতে তৈরি করা গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে গুরুতর আহত হয়েছেন ৩০ জন। এর মধ্যে ছয় জনই আনোয়ারের পরিবারের সদস্য। বাকিরা প্রতিবেশী।

শুক্রবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, একপাশে অর্ধদগ্ধ আনোয়ারের ছয় বছরের মেয়েকে নিয়ে বসে আছেন বোন ফারহানা আক্তার। তিনি জানান, ভাইয়ের পরিবারের ছয়জন এই বিস্ফোরণে ঝলসে গেছে। ছয়জনের চারজনই শিশু। তারা হলেন- আনোয়ারের বোন নাছরিন (২৮), বড় মেয়ে আফনান (৮), ছোট মেয়ে মরিয়ম (৬), তার বোনের ছেলে নাজমুল (৭) ও বোনের মেয়ে নুসরাত (৩)।

ফারহানা জানান, তার ভাই আনোয়ার রাজমিস্ত্রির কাজ করলেও মেলার মৌসুমে বেলুন বানিয়ে পাইকারদের কাছে বিক্রি করতেন। বৃহস্পতিবার বেলুনের একটি বড় অর্ডার আসে। সেই সঙ্গে সামনের শনিবার বেরুলিয়া গ্রামে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ঠাণ্ডাকালি মেলা। ২০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী ওই মেলায় বিক্রি হয় হাজার হাজার বেলুন। ফলে বেলুন ফুলিয়ে বিক্রির জন্য জমা করছিল। তার এই কাজ দেখতে ভিড় করে শিশুরা। তাদের হৈ চৈ দেখে বড়দের অনেকেই সেখানে জড়ো হন। সে সময় হঠাৎ বিস্ফোরিত হয় গ্যাস সিলিন্ডার।

কুমিল্লা মেডিকেলের ক্যাজুয়ালিটি ইনচার্জ ও সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. সেফায়েত উল্লাহ বলেন, বর্তমানে এই হাসপাতালে ১৭ জন ভর্তি। দুই শিশুর অবস্থা গুরুতর। আশঙ্কাজনক দুইজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এখানে দগ্ধদের মধ্য কারও অবস্থাই ভালো না।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার বিরুলিয়া গ্রামের বেলুন ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন বেলুন ফোলানোর সময় বাড়ির মানুষজন ভিড় জমান। হঠাৎ সিলিন্ডারের বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন; যাদের ৪১ জনের অবস্থা গুরুতর।

পি/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS