Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
discover

শিবপুরে ভোট পুনঃগণনার দাবি

শিবপুরে ভোট পুনঃগণনার দাবি
ছবি: প্রতিনিধি

পঞ্চম ধাপে অনুষ্ঠিত নরসিংদীর শিবপুরের যোশর ইউনিয়নের দুইটি কেন্দ্রের ভোট পুনঃগণনা ও একটি কেন্দ্রের পুননির্বাচন দাবি করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস) তোফাজ্জল হোসেন।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে নরসিংদী প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন আনারস প্রতীকের এই প্রার্থী।

এর আগে তিনি নির্বাচন কমিশনে লিখিতভাবে তিনটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সময় ও পরে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে ধরে গেজেট প্রকাশ স্থগিতের দাবি জানিয়েছেন।

তোফাজ্জল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, যশোর ইউনিয়নের ভঙ্গারটেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কামালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও নৌকাঘাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপুর ১২টার পর প্রিসাইডিং অফিসাররা নিজ কক্ষে বসে নৌকা প্রতীকে সিল মেরেছেন।

তিনি জানান, নৌকাঘাট কেন্দ্রে পৌনে ৩টায় হঠাৎ ভোটগ্রহণ স্থগিত রাখা হয়। পরে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে না জানিয়ে বিকাল ৪টায় আবার কেন্দ্রটি চালু করেন। একপর্যায়ে কেন্দ্রে ফল ঘোষণা না করেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় ব্যালট বাক্স নিয়ে চলে যায়।

অন্যদিকে দুপুর ১২টায় কামালপুর কেন্দ্রে নৌকার প্রার্থীর রাসেল আহমেদের নেতৃত্বে স্বতন্ত্র প্রার্থীর এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে পিটিয়ে বের করে দেয়া হয়। পরে কেন্দ্রে ফলাফল পাল্টিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে ফল ঘোষণা ছাড়া কেন্দ্র থেকে চলে যায়।

এ ছাড়া ভঙ্গারটেক কেন্দ্রে উপস্থিত সবার সামনে ঘোষণা করা ফলাফলে আনারস ১ হাজার ৪৮২ ভোট ও নৌকা ৪২৭ ভোট পায় বলে জানানো হয়। কিন্তু এ সময় লিখিত ফলাফল না দিয়ে পুলিশ দিয়ে কর্মীদের মারধর করে ব্যালট বাক্স নিয়ে চলে যায়।

তোফাজ্জল হোসেন বলেন, আমার এজেন্টদের হিসেবমতে আমি বেশি ভোট পেয়েছি। কিন্তু রাতে ফলাফল কারসাজি করে আমাকে পরাজিত দেখিয়ে নৌকা প্রতীককে বিজয়ী দেখানো হয়েছে।

এ বিষয়ে শিবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কাবিরুল ইসলাম খান আরটিভি নিউজকে বলেন, নির্বাচনের সময় সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা রিটার্নিং কর্মকর্তার আওতায় থাকেন। তাই নির্বাচন কর্মকর্তাদের ওপর আমার প্রভাব বিস্তারের প্রশ্নই ওঠে না। এ ছাড়া কোনো প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ-অবৈধ পুরোটাই নির্ধারণের দায়িত্ব রিটার্নিং কর্মকর্তার। পরাজিত হওয়ার পর যে কেউ সংবাদ সম্মেলন করে নানা অভিযোগ করতে পারেন, তবে আমরা আইনের বাইরে গিয়ে কিছুই করিনি।

নরসিংদী জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মেছবাহ উদ্দিন বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থীর লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, এটা নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়েছি। তবে নির্বাচন হওয়ার পর যখন রিটার্নিং কর্মকর্তা ফলাফল ঘোষণা করে দেয় এবং ব্যালট পেপারগুলো সিলগালা করা হয় তখন আমাদের কিছু করার নেই। পুরোটাই হাইকোর্টের বিষয়।

আরএ/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS