Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

স্টাফ রিপোর্টার (কুষ্টিয়া), আরটিভি নিউজ

  ০২ আগস্ট ২০২১, ২২:৪৯
আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২৩:৩১

দিনে দুপুরে ঠিকাদারকে হা'তুড়িপে'টা

দিনে দুপুরে ঠিকাদারকে হাতুড়িপেটা
ফাইল ছবি

কুষ্টিয়ায় দিনে দুপুরে প্রকাশ্যে সিনেমা স্টাইলে এক ঠিকাদারকে হাতুড়িপেটা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার (০২ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের রাইফেল ক্লাবের সামনে মহাসড়কের পাশে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলের কাছ থেকে কিছুটা দূরে এলজিইডির অফিস। হামলার শিকার ঠিকাদারের নাম শহিদুর রহমান ওরফে মিন্টু। তার বাড়ি কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের শানপুকুরিয়া গ্রামে।

এক আওয়ামী লীগ নেতার ইন্ধনে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ করেছেন শহিদুর। তিনি আরটিভি নিউজ জানিয়েছেন, হামলাকারীদের ভয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ঠিকমত চিকিৎসাও নিতে পারেননি। প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় বাড়িতে ফিরে গেছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় যাবেন বলে জানান তিনি।

এছাড়াও একই কারণে থানায় গিয়ে অভিযোগ করতে পারেননি বলে দাবি তার। হামলার সময় ঘটনাস্থলে মানুষের উপস্থিতি ছিল। অনেকেই হামলার দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেন। তবে ঠিকাদার শহিদুরকে রক্ষায় কাউকে এগিয়ে আসতে দেখা যায়নি।

ঠিকাদার শহিদুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, সোমবার দুপুর ১২টার দিকে তিনি শহরে এলজিইডি কার্যালয়ে কাজে যান। কাজ শেষে বের হয়ে রাইফেল ক্লাব মোড়ে হঠাৎ করে ৬ থেকে ৭ জনের মতো ব্যক্তি ঘিরে ধরে হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করেন। পিঠে ও দুই পায়ের হাঁটুতে হাতুড়ি দিয়ে পেটান। এসময় তিনি ঠেকাতে ব্যর্থ হয়ে জীবন বাঁচতে দৌড় দেন। তারপরও তারা তাড়া করে পেটাতে থাকে শরীরের বিভিন্ন স্থানে। সড়কসহ আশেপাশের লোকজন থাকলেও তারা ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি।

তিনি বলেন, হাঁটু থেঁতলে গেছে। পিঠেও লেগেছে। ঠেকানোর সময় হাতেও হাতুড়ির আঘাত পান।

রাতে তিনি আরটিভি নিউজকে বলেন, শহরের বাসায় নিরাপদ বোধ না করায় অন্যত্র লুকিয়ে আছেন।

৩৮ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ক্লিপে দেখা গেছে, শহিদুরকে ঘিরে ধরে হাতুড়ি দিয়ে পেটাচ্ছে কয়েকজন। তিনি দুই হাত দিয়ে আঘাত ঠেকানোর চেষ্টা করছেন। তারপরও তার ওপর হামলা করা হচ্ছে। একপর্যায়ে তিনি দৌড় দিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় দুজন তার পিছু নেন। তাদের একজনের পরনে লুঙ্গি ছিল। আরেকজন প্যান্ট ও শার্ট পরা ছিলেন। তার মুখে মাস্ক ছিল।

শহিদুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, তিনি প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার। দুই মাস আগে মিরপুর উপজেলায় একটি সড়কের সাত কোটি টাকার দরপত্রে অংশগ্রহণ করেন তিনি। ওই দরপত্রে অংশ নেওয়ার আগে থেকে এ কাজে শিউিউল ক্রয় না করতে কয়েকজন হুমকি দেন। পরে তিনি কাজটি না পেলেও দরপত্রে অংশ নেওয়ার কারণে তাকে ফোনে প্রতিনিয়ত হুমকি দিয়ে আসছিলেন ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন নেতা।

শহিদুর অভিযোগ করেন, এক উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা তাকে হুমকি দিয়ে আসছিলেন। তার ক্যাডাররা এ হামলা চালিয়েছে। মামলা করে টিকে থাকতে পারব না।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাব্বিরুল আলম আরটিভি নিউজকে বলেন, হামলা বা মারপিটের বিষয়ে থানায় কেউ কোনো অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এমআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS