Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

স্পিডবোট চালক আটক, ৮ জনের মরদেহ নিলেন স্বজনরা

স্পিডবোট চালক আটক, ৮ জনের মরদেহ নিলেন স্বজনরা
স্পিডবোট চালক আটক, ৮ জনের মরদেহ নিলেন স্বজনরা

মাদারীপুরের শিবচরে পদ্মা নদীতে বালু বোঝাই বাল্কহেড ও স্পিড বোটের সংঘর্ষে ২৬ জন নিহতের ঘটনায় স্পিডবোটের চালক শাহ আলমকে আটক করা হয়েছে। সোমবার (০৩ মে) তাকে আটক করা হয়। এর আগে দুর্ঘটনার পর শাহ আলমসহ পাঁচজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছিল পুলিশ। তাকে পুলিশের নজরদারিতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ পর্যন্ত নিহত আটজনের পরিচয় মিলেছে। তারা হলেন ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার আরজু মিয়া (৪০) ও তার দেড় বছর বয়সী ছেলে ইয়ামিন, মাদারীপুরের রাজৈর শঙ্কারদি এলাকার তাহের মীর (৩০), কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার মাইখারকান্দি এলাকার কাওসার হোসেন (৪০) ও রুহুল আমিন (৩৫), তিতাস উপজেলার ইসুবপুর এলাকার জিয়াউর রহমান (২৮), মুন্সিগঞ্জের সাতপাড় এলাকার সাগর শেখ (৩৭), পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার পসারিয়াবুনিয়া এলাকার জনি অধিকারী (২৬)। তাদের মরদেহ স্বজনদের কাজে হস্তান্তর করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেন। এ দুর্ঘটনায় এখন পর্যন্ত অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন।

এ বিষয়ে বাংলাবাজার ফেরিঘাটের ট্রাফিক পরিদর্শক আশিকুর রহমান জানান, সোমবার (৩ মে) ভোরে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে ৩০ থেকে ৩৫ জন যাত্রী নিয়ে মাদারীপুরের শিবচরের বাংলাবাজারের দিকে আসছিল স্পিডবোটটি। ঘাটের কাছাকাছি এলে নোঙর করা বালুবোঝাই একটি বাল্কহেডে ধাক্কা দিয়ে স্পিডবোটটি উল্টে যায়। এতে ২৬ জন যাত্রী নিহত হন।

নিহতের প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া ঘোষণা দিয়েছে জেলা প্রশাসক ডা. রহিমা খাতুন।

এমআই

RTV Drama
RTVPLUS