• ঢাকা সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬

নুসরাত হত্যায় ১৬ আসামির মৃত্যুদণ্ড চেয়েছে পিবিআই, চার্জশিট কাল

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৮ মে ২০১৯, ১৩:৩৬ | আপডেট : ২৮ মে ২০১৯, ১৫:২৮
পিবিআই সদর দপ্তরে প্রেস ব্রিফিংয়ে পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার, ছবি: সংগৃহীত
ফেনীর মাদরাসা শিক্ষার্থী নুসরাত হত্যা মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলা ও ফেনী আওয়ামী লীগের দুই নেতাসহ মোট ১৬ জনের বিরুদ্ধে আগামীকালই আদালতে চার্জশিট জমা দেয়া হবে। চার্জশিটে ১৬ জনের প্রত্যেকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়েছে পিবিআই।

whirpool
আজ মঙ্গলবার সকালে ধানমন্ডিতে পিবিআই সদর দপ্তরে প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদার। নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার তদন্তের সর্বশেষ অগ্রগতি জানাতে আজকের সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

চার্জশিটে যাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তারা হলেন-এসএম সিরাজ-উদ দৌলা (৫৭), নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম(২০), মাকসুদ আলম ওরফে মোকসেদ কাউন্সিলর (৫০), সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের(২১), জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন (১৯), হাফেজ আব্দুল কাদের (২৫), আবছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে চম্পা/শম্পা (১৯), আব্দুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন ওরফে মামুন (২২), মোহাম্মদ শামীম (২০), রুহুল আমিন (৫৫) ও মহিউদ্দিন শাকিল (২০)।

বহুল আলোচিত এ হত্যা মামলায় ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলা, আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিনসহ ১৬ জন জড়িত বলে জানিয়েছে পিবিআই। এ মামলায় সিরাজ-উদ দৌলা, রুহুল আমিনসহ ২১ জন ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন।

আগামীকাল এ মামলার চার্জশিট জমা দেয়া হলে হত্যাকাণ্ডের দুই মাসের মধ্যেই এ চার্জশিট জমা দেয়া হবে। অপরদিকে নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে সাইবার ট্রাইব্যুনাল।

উল্লেখ্য, অধ্যক্ষের নিপীড়নের ঘটনায় নুসরাতের মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। এরপর গত ৬ এপ্রিল সকালে নুসরাত আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান। এ সময় মাদরাসার এক ছাত্রী তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কেউ মারধর করছে- এমন সংবাদ দিলে তিনি ওই বিল্ডিংয়ের চারতলায় যান। সেখানে মুখোশ পরা চার-পাঁচজন তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলার বিরুদ্ধে মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে চাপ দেয়। রাফি অস্বীকৃতি জানালে তারা তার গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায়। গত ১০ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নুসরাতের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় তার বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ দৌলাসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়