Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮

অনুসন্ধানে গোল্ডেন মনিরের সঙ্গে জড়িতদের নাম প্রকাশ

অনুসন্ধানে গোল্ডেন মনিরের সঙ্গে জড়িতদের নাম প্রকাশ

রাজধানীর বাড্ডার মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনির সোনা চোরাচালান, জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ভূমি দখল ও ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি করে বিপুল অর্থসম্পদের মালিক হয়েছেন। তার এই অর্থের পেছনে ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন নেতার সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

পাঁচ মাস সরেজমিনে অনুসন্ধানের পর সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক রিয়াজ উদ্দিন ছাড়াও বেশ কয়েকজন জড়িত থাকার নাম পেয়েছে সিআইডি।

এই গোল্ডেন মনির দোকানের কর্মচারী থেকে অল্প সময়ে হাজার কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়া। তার বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনে মামলা করেছে সিআইডি।

মামলায় মনিরের স্ত্রী, বোন–ভগ্নিপতি এবং ছেলে–মেয়েদেরও আসামি করা হয়েছে। একইসঙ্গে গোল্ডেন মনিরকে অপরাধমূলক কাজে সহযোগিতার অভিযোগে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ও সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক রিয়াজ উদ্দিনকে (৬৩) আসামি করা হয়েছে। এ ছাড়া রিয়াজ উদ্দিনের ভাই হায়দার আলী (৫৬), ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৪৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. শফিকুল ইসলাম ওরফে শফিককেও (৫২) আসামি করা হয়েছে।

সিআইডির পরিদর্শক মো. ইব্রাহিম হোসেন মঙ্গলবার (১১ মে) বাদী হয়ে বাড্ডা থানায় মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনে এই মামলা দায়ের করেন। পাঁচ মাস সরেজমিনে অনুসন্ধান করে সিআইডি কর্মকর্তা ইব্রাহিম এসব তথ্য পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

মামলায় বলা হয়েছে, অপরাধলব্ধ আয় দিয়ে গোল্ডেন মনির নিজে ও তার স্ত্রীসহ আত্মীয় স্বজনের নামে সরকারি ২০টি সহ ৩০টি প্লট, ১৫টি ভবন, একটি আবাসন প্রতিষ্ঠান এবং দুটি গাড়ির শো রুম করেছেন। ব্যাংকে ৭শ’ ৯১ কোটি টাকা জমা রয়েছে। সবই তিনি নানা অপকর্মের মাধ্যমে অর্জন করেছেন।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলাম বলেন, গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় মোট ১০ জনকে আসামি করা হয়েছে। অপর আসামিরা হলেন– গোল্ডেন মনিরের সহযোগী আবদুল হামিদ (৬০), মনিরের স্ত্রী রওশন আক্তার, ছেলে রাফি হোসেন, বোন নাসিমা আক্তার, নাসিমার স্বামী হাসান আলী খান, মনিরের আরেক ভগ্নিপতি নাহিদ হোসেন।

এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা অপরাধের মাধ্যমে স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ অর্জন করেছেন। তারা এসব অর্জিত সম্পদ জ্ঞাতসারে গ্রহণ করে ভোগ দখল করছেন।

সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইমের বিশেষ পুলিশ সুপার হুমায়ুন কবির গণমাধ্যমকে বলেন, কারাগারে থাকা গোল্ডেন মনিরকে মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হবে। এজাহারভুক্ত বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এফএ

RTV Drama
RTVPLUS