logo
  • ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

সাকিবকে হত্যার হুমকি দিয়ে যেভাবে গ্রেপ্তার হলেন মহসিন

মহসিন তালুকদার।
বাংলাদেশ জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে হত্যার হুমকি দিয়ে সিলেট থেকে সুনামগঞ্জে পালিয়ে আসেন মহসিন তালুকদার (৪০)। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাকিবকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন তিনি। এরপর লুকিয়ে ছিলেন জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের রনসি গ্রামের একটি বাড়িতে।

মহসিন যে বাড়িতে পালিয়ে ছিলেন সেটি তার ভায়রার। সেখান থেকেই আজ মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) বেলা সোয়া ১১টার দিকে র‍্যাব  গ্রেপ্তার করে তাকে।

র‍্যাব-৯-এর জ্যেষ্ঠ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ রাসেল বলেন,  সুনামগঞ্জে তিনি লুকিয়ে আছেন। এমন তথ্য আমাদের কাছে ছিল। সেই সূত্র ধরেই সোমবার রাতেই তিনটি দল জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযানে নামে। এ সময় সুনামগঞ্জে থাকা মহসিনের বিভিন্ন আত্মীয় ও পরিচিত ব্যক্তির বাড়িতে অভিযান চালায় র‍্যাব।

তিনি আরও বলেন, সিলেট থেকে তার স্ত্রী ও ওই এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানকে সুনামগঞ্জে আনা হয়। এই ঘটনায় স্ত্রীও মহসিনকে ধরতে সহায়তা করেন। মঙ্গলবার সকালে একপর্যায়ে স্ত্রীর সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেন মহসিন। আর সেই ফোন কলের সূত্র ধরেই তার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয় র‍্যাব। পরবর্তীতে রনসি গ্রামের  বাড়িটি থেকে  গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। গ্রেপ্তারের পর মহসিনকে সিলেট র‍্যাব কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত রোববার (১৫ নভেম্বর) রাত ১২টার দিকে সিলেটের সদর উপজেলার শাহপুর তালুকদার পাড়ার আজাদ বক্স তালুকদারের ছেলে মহসিন তালুকদার ফেসবুক লাইভে এসে সাকিবকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলো।

লাইভের সময়ে মহসিন নামের ওই ব্যক্তি হাতে রাম দা নিয়ে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানকে কুপিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দেন। মহসিন নামে ওই ব্যক্তির ভিডিওটি মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এর পর ওই ব্যক্তিকে খুঁজতে শুরু করেছে পুলিশ। এনিয়ে এসএমপির অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) এবিএম আশরাফ উল্লাহ তাহের আরটিভি নিউজকে বলেন, সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ তথা বিশ্বের সম্পদ। তাকে প্রাণনাশের হুমকির বিষয়টি নজরে আসার পরপরই পুলিশের সকল বাহিনী তাকে গ্রেপ্তারে মাঠে নেমেছিলো। এ ঘটনা মামলা দায়েরের করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সাকিবের বিষয়টি দুই দেশের ধর্মীয় সম্প্রীতির একটা উদাহরণ। এসব বিষয়ে উস্কানি পুলিশ গুরুত্ব দিয়ে দেখছে।

এক বছরের নিষেধাজ্ঞা শেষে ক্রিকেটে ফিরেছেন সাকিব। নিষেধাজ্ঞার সময় গণমাধ্যমের সামনেও আসতে পারেননি সাকিব। তাই নিষেধাজ্ঞা শেষে বেশ কিছু সামাজিক ও ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডে অংশ নিয়েছেন। সম্প্রতি কলকাতায় একটি কালীপূজা মন্দিরে উদ্বোধন করতে যান সাকিব।

এরপর থেকে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে অনেকে। গত কদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাকিবকে নিয়ে আলোচনা হয়েছে পক্ষে-বিপক্ষে। তবে এমন হত্যার হুমকিও দেবে সেটা কে জানে। কলকাতায় পূজা উদ্বোধনে যাওয়া নিয়ে তাকে কুপিয়ে টুকরো করে ফেলার কথা বলেন মহসিন নামের যুবক।

এসময় সাকিবকে গালাগালি করে মহসিন বলেন, সাকিবকে হত্যা করতে প্রয়োজনে হেঁটেই ঢাকা যাবেন। মধ্যরাতে এমন হুমকি দেয়ার পর অবশ্য শেষ রাতে আবারও লাইভে এসে ক্ষমা ও দুঃখ প্রকাশ করেন মহসিন নামের ওই ব্যক্তি।

গত ২৯ অক্টোবর এক বছরের নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্ত হয়ে সাকিব দেশে ফিরেন গত ৫ নভেম্বর মধ্যরাতে। পরদিন সকালে কোয়ারেন্টিন না মেনে একটি সুপার শপের উদ্বোধন করতে গিয়ে আবারও সমালোচনায় পড়েন সাকিব আল হাসান। তবে সাকিব আল হাসান কলকাতায় পূজা উদ্বোধনের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

এম

RTVPLUS