logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

সারাদেশে গণপিটুনিতে নিহত ৮

‘সন্দেহের বসে একটা মানুষকে হত্যা করা যায়’ (ভিডিও)

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২২ জুলাই ২০১৯, ১৪:১৬ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৯, ১৬:৫৪
ছেলেধরা সন্দেহে গত তিন দিনে সারাদেশে গণপিটুনিতে ৮ জন নিহত হয়েছেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সন্দেহের বসে নিরীহ মানুষকে হত্যা করা হয়। অপরাধ বিজ্ঞানীর মতে, এমন ঘটনা মানুষের হিংস্রতার বহিঃপ্রকাশ। আইন ও বিচার ব্যবস্থায় আস্থাহীনতার প্রতিফলন। এ অবস্থায় পুলিশ সদর দপ্তর সতর্ক করে বলেছে, আইন হাতে তুলে নিলে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

bestelectronics
কয়েকদিন আগে রাজধানীর বাড্ডায় সন্তানের স্কুলে ভর্তির ব্যাপারে খোঁজ নিতে এসে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রাণ হারান দুই সন্তানের জননী তাসলিমা বেগম। নির্মম এই হত্যার ঘটনায় বাকরুদ্ধ নিহতের স্বজনরা। তারা বলেন, শুধুমাত্র সন্দেহের বসে একজন মানুষকে হত্যা করা যায়? এতো নির্মম হয়ে ওঠছে মানুষ? 

গেল বৃহস্পতিবার নেত্রকোনায় শিশুর ছিন্ন মাথা নিয়ে ধরা পড়ায় এক যুবককে গণপিটুনি দেয় জনতা। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। 
পুলিশ জানায়, তিনি মাদকাসক্ত ছিল। 

শুক্রবার ঢাকার কেরানীগঞ্জ, গাজীপুরের চান্দনা ও কালিয়াকৈরের লতিপপুরে গণপিটুনির ঘটনা ঘটে। 

শনিবার ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মিজমিজি পূর্বপাড়া ও পাইনাদী শাপলা চত্বরে দু’জন মারা যান। একই দিন সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়ন ও মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে গণপিটুনির ঘটনা ঘটে। গণপিটুনিতে নিহত বা আহতদের অনেকেই প্রতিবন্ধী।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান বলেন, হঠাৎ ছেলে ধরা আতঙ্ক সাধারণ মানুষকে হিংস্র করে তুলেছে। 

এ অবস্থায় সাধারণ মানুষকে সতর্ক করেছে পুলিশ সদর দপ্তর। এই কর্মকর্তা বলেন, গুজবে কান না দিয়ে, এ ধরনের ঘটনায় পুলিশের সহায়তা নেয়া উচিত।  

অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক সোহেল রানা (মিডিয়া ও পাবলিকেশনস) বলেন, দেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে পরিকল্পিতভাবে কোনও গোষ্ঠী এমন কর্মকাণ্ড উস্কে দিচ্ছে কিনা, তাও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এসএস

bestelectronics bestelectronics
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়