• ঢাকা রবিবার, ১৬ জুন ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬

প্রবাসীদের ভোটের ক্ষেত্রে দ্বৈত নাগরিকত্বই প্রধান সমস্যা : সিইসি

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৯ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:১০ | আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০১৮, ১৯:৫৮
প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটার করার ক্ষেত্রে দ্বৈত নাগরিকত্বই হচ্ছে প্রধান সমস্যা। কারণ পৃথিবীর অনেক দেশে দ্বৈত নাগরিকত্বের বৈধতা নেই। বললেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

whirpool
বৃহস্পতিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁয়ে প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান ও ভোটাধিকার প্রয়োগশীর্ষক এক সেমিনারের তিনি এসব কথা বলেন।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

নূরুল হুদা বলেন, প্রবাসীদের ভোটাধিকার দিতে ২০০৮ সালে পোস্টাল ভোট চালু হলেও তা কার্যকর করা যায়নি। প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের বিভিন্ন বিভাগ থেকে প্রবাসীদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে কমিশনকে চিঠি দিয়েছে। কমিশনও এ বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে। আগামী নির্বাচনের আগে এসব পদ্ধতি নিয়ে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালানো হবে।

সিইসি বলেন, বাংলাদেশের এক কোটিরও বেশি নাগরিক পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে বসবাস করেন। তাদের ভোটাধিকার নিশ্চিতে দীর্ঘদিন ধরে দাবি রয়েছে।

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন : ‘দুজন মুখ চেপে ধরে, আরেকজন পা বাঁধা শুরু করলো'
--------------------------------------------------------

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম আগামী নির্বাচনে সীমিত আকারে পরীক্ষামূলকভাবে প্রবাসীদের ভোট দেয়ার বিষয়ে সুপারিশ করেন। ওই পরীক্ষার আলোকে সুবিধা-অসুবিধা বিবেচনা করে পরে সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে।

মূল প্রবন্ধে সাইদুল ইসলাম বলেন, প্রবাসে ভোট গ্রহণের সুবিধা-অসুবিধার বিস্তারিত পরীক্ষা-নিরীক্ষাপূর্বক একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর প্রবাসে ভোট গ্রহণের বিষয় বিবেচনা করার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

তিনি বলেন, বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের জন্য নিবন্ধন প্রক্রিয়া এগিয়ে নিতে প্রতিটি দূতাবাসে একটি লোকাল সার্ভার স্থাপন, প্রবাসীদের সংখ্যানুপাতে রেজিস্ট্রেশন টিম তৈরি করে কাজ এগিয়ে নেয়া এবং নিবন্ধন কাজের জন্য যন্ত্রপাতি ও দক্ষ আইটি কর্মকর্তা নিয়োগ করতে হবে।

তিনি বলেন, প্রবাসে ভোটগ্রহণে প্রধান চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, বিপুল সংখ্যক ভোটকেন্দ্র স্থাপন ও ব্যয়, ভোটকেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত, সহিংসতা ঠেকানো, পোস্টাল ব্যালটের স্বচ্ছতা ও গোপনীয়তা রক্ষা করা।

প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মসিউর রহমান, নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাখাওয়াত হোসেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (কনস্যুলার) নাহিদা রহমান সুমনা, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ইয়েমেন আকবরী, ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবহান শিকদার, সৌদিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শফিকুল ইসলাম, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমুল্লাহ,বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের সেমিনারে অংশ নেন।

আরও পড়ুন : 

জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়