• ঢাকা সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১
logo

ঠাকুরগাঁওয়ে ১১৯২ জন শিশুকে শ্রম মুক্ত করেছে ইএসডিও

আরটিভি নিউজ

  ৩১ মার্চ ২০২৪, ১৯:০৪

দেশের উত্তরাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জেলা ঠাকুরগাঁওকে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম মুক্ত ঘোষণা করে সরকারের দায়িত্বশীলদের কাছে নথিপত্র হস্তান্তর করেছে জেলার পাঁচ উপজেলার চেয়ারম্যানরা।

শনিবার (৩০ মার্চ) রাজধানীর বিজয়সরণীর বঙ্গবন্ধু সামরিক জাদুঘরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন, সরকারি হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য হাফিজ উদ্দিন আহমেদ এবং জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য দ্রৌপদী দেবী আগরওয়ালার হাতে এসব নথিপত্র তুলে দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইকো স্যোসাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (ইএসডিও)।

এর আগে ঠাকুরগাঁওকে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম মুক্ত করতে জেলার পাঁচটি উপজেলার তিনটি পৌরসভা ও ৫৪ ইউনিয়নে একটি প্রকল্প পরিচালনা করে ইএসডিও। আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সহযোগিতায় ও যুক্তরাজ্যের এফসিডিও এর অর্থায়নে প্রকল্পের আওতায় ঠাকুরগাঁওয়ে এক হাজার ১৯২ জন শিশু শ্রমিককে চিহ্নিত করে তাদের শ্রম মুক্ত করে স্কুলে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছে সংস্থাটি।

অনুষ্ঠানে প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পর্কে ইএসডিও এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. মো. শহিদ উজ জামান বলেন, আমরা এই কার্যক্রমটি শুরু করার আগে পুরো জেলার ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রমের সার্ভে করেছিলাম। সেই সার্ভেতে আমরা দেখেছি পুরো জেলায় ১ হাজার ১৯২ জন শিশু ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রমে জড়িত রয়েছে। তারপর আমরা জেলার ৫৪টি ইউনিয়ন ও তিনটি পৌরসভার সঙ্গে পৃথকভাবে মিটিং করার পর সেখানে আমরা এক ধরনের কমিউনিটি লেভেল পর্যবেক্ষণ মডেল তৈরি করি। এবং এই শিশুদের শ্রম থেকে মুুক্ত করার দায়িত্ব দেই তাদের। কারণ শিশুশ্রম মুক্ত করার দায়িত্ব সরকারের। আমরা তাদের সহযোগিতা করি। ১৪ বছর বয়সের নিচে শিশুদের আমরা স্কুলে পাঠানোর ব্যবস্থা করি এবং ১৪ বছরের বেশি বয়সের যেসব শিশু ছিল, তাদের আমরা নানা ধরনের প্রিভোকেশনাল প্রশিক্ষণ দিয়ে নানা ইতিবাচক কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্তি করেছি। এখন এটি যেন আবার বন্ধ না হয়ে যায়, সেজন্য এসব শিশুদের বাবা-মায়ের আয়ের সুবিধার্থে তাদের সরকারের বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্প ও এনজিও সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে যুক্ত করা হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও ঠাকুরগাঁও-১ আসনের সংসদ সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন বলেন, শিশুদের শ্রম মুক্ত করা একটি কঠিন কাজ। প্রতিটি এলাকায় গিয়ে শিশুদের বুঝিয়ে শিক্ষার সঙ্গে যুক্ত করা সহজ কাজ নয়। ইএসডিও এই কঠিন কাজটি করেছে। এজন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমি চাই এই কার্যক্রম চলতে থাকুক। যেহেতু ঠাকুরগাঁওকে শিশুশ্রম মুক্ত করা গেছে, সেহেতু সারা বাংলাদেশও শিশুশ্রম মুক্ত করা হোক।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) জাতীয় প্রোগ্রাম কর্ডিনেটর সৈয়দা মুনিরা সুলতানা, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর তুমো পুতিয়ানিন, জাতীয় শিশুশ্রম পর্যবেক্ষণ কমিটির কো-চেয়ারম্যান সালমা আলী, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক, ঢাকায় অবস্থিত ব্রিটিশ হাই কমিশনের স্যোসাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাডভাইজার তাহেরা জাবিন প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

daraz
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
নিখোঁজের ২ দিন পর স্কুলছাত্রের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার
রং খেলার সময় অটোচাপায় শিশুর মৃত্যু
পুলিশ হেফাজতে যুবদল নেতার মৃত্যুর অভিযোগ 
বাড়ি ফেরার পথে প্রাণ গেল ২ সহকর্মীর 
X
Fresh