• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

জয় দিয়েই সিপিএল ছাড়লেন মাহমুদুল্লাহ

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৩:৪৬ | আপডেট : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৭
ফাইল ছবি
আর দশদিন পরই সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবে এশিয়া কাপের ১৪তম আসর। সেখানে বাংলাদেশসহ এশিয়ার ছয়টি দেশ অংশগ্রহণ করবে। প্রতিটি দল ইতোমধ্যে তাদের প্র্যাকটিস শুরু করে দিয়েছে। বাংলাদেশ দলও এর ব্যতিক্রম নয়। সাকিব ও মাহমুদুল্লাহকে ছাড়াই অনুশীলন শুরু করে তারা। সাকিব যুক্তরাষ্ট্রে ও মাহমুদুল্লাহ সিপিএলে ব্যস্ত থাকায় অনুশীলনে যোগ দিতে পারেননি। 

সাকিব যুক্তরাষ্ট্র থেকে দলের সঙ্গে আরব আমিরাতে যোগ দেবেন। আর মাহমুদুল্লাহ সিপিএলে সেইন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলে দেশের পথে রওনা হয়েছেন। 

বুধবার বাসেতেরেতে টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেন সেন্ট কিটসের অধিনায়ক ক্রিস গেইল। তার সিদ্ধান্তকে ভুল প্রমাণ করেন বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের দুই ওপেনার ডোয়াইন স্মিথ ও সানি সোহাল। প্রথম ৬.২ ওভারেই ওপেনিং জুটিতে ৪৫ রান তোলেন এ দুজন। এরপর তাবরাইজ শামসি স্মিথকে ও মাহমুদুল্লাহ সোহালকে দ্রুতই ফেরত পাঠান। 

এ দুজনের বিদায়ের পর উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই হাশিম আমলা ও সাই হোপকে বিদায় করে দেয় সেন্ট কিটসের বোলাররা। তবে দলের এমন পরিস্থিতিতে একপাশ আগলে রাখেন নিকোলাস পুরান। ৩৩ বলে ৩টি করে চার-ছক্কায় ৪৪ রান করে ফেরেন। ততক্ষণে মোটামুটি স্কোরের ভিত্তি পেয়ে যায় বার্বাডোজ।

শেষ দিকে রোস্টন চেজ ও জেসন হোল্ডারের ঝড়ে লড়াইয়ের পুঁজি পায় বার্বাডোজ। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট ১৬৮ রান তোলে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস। 

সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের শামসি ২টি ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ১টি উইকেট লাভ করেন।

জবাবে সেন্ট কিটসে দারুণ সূচনা এনে দেন গেইল ও লুইস। দলীয় ৩৭ রান তোলার পর লুইসকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন মোহাম্মদ ইরফান। এরপর যথারীতি গেইল ও ভ্যান ডার ডুসেনকে দ্রুতই ফেরত পাঠান ইরফান। পরে মাহমুদুল্লাহ নেমে কিছুটা চেষ্টা করলেও অপরপ্রান্ত দিয়ে উইকেট পড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত ১৯ বলে ১ ছক্কায় ১৫ রান করে ফেরেন তিনি।

৯২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুকতে বসা সেন্ট কিটসকে জয়ের স্বপ্ন দেখান ফ্যাবিয়ান অ্যালেন। বেন কাটিংয়ের সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ৫২ রানের জুটি গড়েন। কাটিংয়ের বিদায়ের পর কোনও সমস্যা ছাড়াই জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন অ্যালেন। অ্যালান ৩৪ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন। 

বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের বোলারদের মধ্যে মোহাম্মদ ইরফান ৩টি, ইমরান খান ২টি, জ্যাসন হোল্ডার ও ওয়াহাব রিয়াজ ১টি করে উইকেট শিকার করেন। দুর্দান্ত ইনিংসের জন্য ম্যাচ সেরা হন ফ্যাবিয়ান অ্যালেন।

এই জয়ের মাধ্যমে লিগ পর্ব শেষ হলো প্যাট্রিয়টসের। তারা আগেই প্লে-অফ নিশ্চিত করেছে। ১১ পয়েন্ট নিয়ে এখন রিয়াদের দল শীর্ষে রয়েছে। অন্যদিকে, লিগ পর্বে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসের ম্যাচ বাকি থাকলেও আগেই তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। নয় ম্যাচ খেলে চার পয়েন্ট নিয়ে তারা এখন পয়েন্ট টেবিলে সবার নিচে অবস্থান করছে।

আরও পড়ুন  :

এএ/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়