• ঢাকা মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫

ড্রাইভার বললো `গেট লাগায় দে’ বাস থেকে লাফিয়ে বাঁচলেন ইডেনের ছাত্রী

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ১৯ মার্চ ২০১৮, ১৩:৪৩ | আপডেট : ২০ মার্চ ২০১৮, ১৫:৩৫
ছবি : সংগৃহীত
এবার চলন্ত বাসে হয়রানির শিকার হয়েছেন এক ছাত্রী। নিজের ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানিয়ে সবাইকে সতর্ক করার চেষ্টা করেছেন তিনি।

গত ৭ মার্চ ভিকারুন্নিসা স্কুলের ছাত্রীর নিপীড়নের ঘটনার ১০ দিন পার হতে না হতেই আরও একটি নিপীড়নের ঘটনা উঠে আসলো ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে।

গত ১৭ মার্চ বাসে বাড়ি ফেরার পথে বাসে নিপীড়নের শিকার হন ইডেন কলেজের এই ছাত্রী। সেই ছাত্রী তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখে জানান, ‘১৭ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে টিউশনি শেষে ফার্মগেট এলাকা থেকে বাসার উদ্দেশ্যে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। তখন ‘নিউভিশন’ বাস দেখে হাত তুলে বাস থামিয়ে সেই বাসে উঠি। বাসে অল্প কিছু লোক এবং পেছনটা ফাঁকা। তখন মনে মনে ভয় পাই।’

তিনি লিখেন, ‘বাসে উঠে দেখলাম পিছনে পুরো ফাঁকা। অনেকটা ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। বসলাম সিটে যে, সামনে লোকগুলো তো আছে। আমি বসার পরেই উনারা ড্রাইভারের সাথে কথা বলছে আর বলছে 'বাস আসাদগেট দিয়া না লইয়া সংসদের রাস্তা দিয়া ঘুরা'। আমি দাঁড়াইয়া বললাম বাস অইদিকে গেলে আমাকে মোড়ে নামাই দেন।’

--------------------------------------------------------
আরও পড়ুন: রংপুরে মাজারের খাদেম হত্যায় ৭ জঙ্গির ফাঁসি
--------------------------------------------------------

কন্ডাক্টর গেটে হাত রেখে কিছুটা বাঁকা হয়ে দাঁড়ায় ছিল আর বললো, আরে আপা ভয় পাইতাছে- এই বলে বাসের সবাই হাসছিল। এর মধ্যে খামারবাড়ির মোড় ঘুরিয়ে বাস সংসদের সাইডের রাস্তায় নিয়ে যায়। আমি চিল্লায় বললাম- বাস থামান নাইলে আমি পুলিশ কমপ্লেইন করব।’

এই বলায় ড্রাইভার বললো, ‘গেট লাগায় দে। কন্ডাক্টর যখন গেট আটকাবে আমি কোনো চিন্তা না করেই তাকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে বাস থেকে লাফ দিলাম। ব্যথা পেয়েছি হাতে। কিন্তু পাশেই কতগুলো পুলিশ দেখে তাদের গিয়ে বললাম- আপনারা নেক্সট সিগনালে খবর দেন যেন বাসটা ধরে।’

তখন ওই স্থানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিষয়টিকে গুরুত্ব দেননি বলে স্ট্যাটাসে অভিযোগ করেন ওই শিক্ষার্থী। তিনি আরও লিখেন, ‘হয়তো কালকের পেপারে আমার নাম থাকত। অথবা গুম হয়ে যেতাম। আমাদের দেশের পুলিশেরা উন্নতি করছে। জাতির পিতার সোনার বাংলা। শুভ জন্মদিন।’

পরদিন ১৮ মার্চ ফেসবুকে আরেকটি ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে ওই শিক্ষার্থী জানান, তিনি এই বিষয়ে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করলে পুলিশ ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে। এই ঘটনার পরবর্তী ফলোআপও ফেসবুকের মাধ্যমে জানানো হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। সেই সাথে নিউজ পোর্টালে কোনো বক্তব্য দিতে ইচ্ছুক না বলেন জানিয়েছেন ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে।

আরও পড়ুন:

পিআর/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়