logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭

গোলাপি রঙের বলেও সাদামাটা বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:০৯ | আপডেট : ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:১৪
গোলাপি বলেও সাদামাটা বাংলাদেশ
ছবি- সংগৃহীত
গোলাপি বলে টাইগারদের অভিষেকটা বীভৎস হলো বলা যায়। কলকাতার গোলাপি রঙের উৎসবে খেই হারিয়ে ফেলা বাংলাদেশ দলের প্রথম দিনে ব্যাটিং করা হলো না ফ্লাড-লাইটের আলোয়। লাইট জ্বলার আগেই ইশান্ত-শামীদের তাণ্ডবে অল-আউট হয়ে হয়েছে সফরকারীদের।

উপমহাদেশের প্রথম দিবারাত্রির ম্যাচ এটি। দুপুরে টস জিতে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক সিদ্ধান্ত নেন আগে ব্যাট করার। ইন্দোর টেস্টের দল থেকে বাদ দিয়ে গঠন করা হয়েছিল একাদশ। মেহেদী মিরাজ আর তাইজুল ইসলামকে বাদ দিয়ে নেয়া হয়েছে আল আমীন ও নাঈম হাসানকে।

ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ইশান্ত শর্মার তোপের মুখে পড়ে টাইগার দুই ওপেনার সাদমান ইসলাম ও ইমরুল কায়েস।

ইশান্তের তোপে নিজেকে আর শান্ত রাখতে পারেননি ইমরুল কায়েস। ১৫ বলে ৪ রান করে ৬ ওভার ৩ বলের মাথায় এলবিডব্লু হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

সাদমান আগলে রেখেছিলেন এক প্রান্ত। অন্য প্রান্তে তখন উইকেটে আসা-যাওয়ার মিছিল। মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন আর মুশফিকুর রহিম ফেরেন খালি হাতে।

টপ-অর্ডারের এমন বেহাল দশার পর আর নিজেকে ঠিক রাখতে পারেননি ওপেনার সাদমান। ৫২ বল খেলে ২৯ রান তুলে বিদায় নেন তিনিও।

এই ২৯ রানই দলের সর্বোচ্চ রান।

লিটন দাসের গোলাপি বল দেখতে সমস্যার খবর চাউর হয় ম্যাচ শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে তোয়াক্কা করেননি সেসবের।

২৭ বলে ২৪ রানের ইনিংসের মধ্যে ছিল চারটি চার। বড় ইনিংসের আভাস যখন দিলেন, তখন মোহাম্মদ শামীর বাউন্সারের আঘাতে ছাড়তে হয় মাঠ।

তার বদলী মেহেদী মিরাজ ব্যাট করতে আসেন, করেন ৮ রান। মিরাজের বদলে একাদশে জায়গা পাওয়া নাঈম হাসান করেন ২৮ বলে ১৯ রান। তাতে অবশ্য কোনমতে ১০০ রান পার করে বাংলাদেশ।

শেষদিকে ব্যাটসম্যানদের দোষ দিয়েও বা কি লাভ। ইশান্ত শর্মার ৫ উইকেট উমেশ যাদবের ৩ আর মোহাম্মদ শামীর ২ উইকেটের তাণ্ডবে ১০৬ রানে অল-আউট হয়ে যায় বাংলাদেশ। তাতে প্রথম দিনে ফ্লাড-লাইটের আলোয় আর ব্যাটিং করা হলো না বাংলাদেশের।

এমআর/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশের ভারত সফর এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশের ভারত সফর এর পাঠক প্রিয়