logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিপিএলকে ঘিরে বিশেষ ভালা লাগা কাজ করে বিজয়ের

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:৫১ | আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:৫৪
বিপিএলকে ঘিরে বিশেষ ভালা লাগা কাজ করে বিজয়ের
ছবি- সংগৃহীত
বিপিএল দিয়েই বাংলাদেশ জাতীয় দলে জায়গা করে জায়গা করে নিয়েছিলেন। ২০১২ সালের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের প্রথম আসরে বাজিমাৎ করে খুব দ্রুতই সুযোগ পেয়ে যান জাতীয় দলে।

এরপর ভালোই চলছিল সব। কিন্তু ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপের পর আর নিয়মিত হতে পারেননি জাতীয় দলে। সামনে আবারও অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বসতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ। ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে অস্ট্রেলিয়াতে।

তার আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য খেলোয়াড় বাছাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে। তার অংশ এবারের বিপিএলও।

বিপিএল যখন বিশ্বকাপের দলে সুযোগ পাবার বড় মঞ্চ, তখন যে কেউই চাইবে এই আসরে নিজেকে প্রমাণের। তেমনই এনামুল হক বিজয়ও নিজের পরিকল্পনা সাজিয়েছেন বিপিএল নিয়ে।

এবারের বিবিপিএলে ঢাকা প্লাটুনের হয়ে খেলবেন বিজয়। আজ মিরপুরের একাডেমি মাঠে অনুশীলন করেন কিছুক্ষণ। শেষে কথা বলেন গণমাধ্যমের।

নিজের পরিকল্পনা তুলে ধরে বিজয় বলেন, সবারই ব্যক্তিগতভাবে অনেক পরিকল্পনা থাকে। কে কিভাবে খেলবে, কত ভালো খেলবে, দলের জন্য কতটুকু অবদান রাখতে পারবে। অবশ্যই পরিকল্পনা থাকবে। আমাদের সবারই। আমার নিজেরও আছে। দলের জয়ে কিভাবে অবদান রাখব। আসলে বিপিএল দিয়েই আমার ক্যারিয়ারের যাত্রা শুরু হয়েছিল। এখানে ভালো পারফর্ম করে আমি যেন আবারো জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে পারি।

অনেকদিন ধরে অফ-ফর্মে থাকা বিজয় নিজেকে ফিরে পেতে চান। অবদান রাখতে চান দলের জয়ে।

‘এটা আমার জন্য ভালো মঞ্চ। শুধু আমার জন্য না। প্রত্যেকটা ক্রিকেটারের জন্যই এটা দারুণ একটি মঞ্চ। আমার ক্ষেত্রে বিশেষ ভালোলাগা কাজ করে বিপিএলকে ঘিরে। কেননা পাঁচ-ছয়টা বিপিএলের মধ্যে তিনটা বিপিএলে আমি চ্যাম্পিয়ন দলে ছিলাম। সেভাবে অবদান রাখতে পেরেছি। এটা পারফর্ম করার জন্য দারুণ জায়গা আমার জন্যে। চেষ্টা করব এখানে আরও বেশি ভালো করার। দল জেতাতে যদি ১৪০ স্ট্রাইক রেট রাখতে হয়, তাহলে সেটা রাখার চেষ্টা করব।’

এবার বিজয়ের সঙ্গে ঢাকা প্লাটুনে আছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবালের মতো দেশদেরা খেলোয়াড়েরা। ছয় আসরে তিনবার চ্যাম্পিয়ন হবার স্বাদ পাওয়া বিজয় তবু চাপ হিসেবেই নিচ্ছেন বিপিএলকে। চাপ কিসের সেটাও বললেন খুলে।

‘হ্যাঁ, একটু চাপ তো থাকেই সবসময় ক্রিকেটারদের। চারপাশে ফ্রেন্ড সার্কেল থেকে শুরু করে মানুষ সবাই তো বলেই ভালো করতে হবে, ভালো করতে হবে। নিজেরও একটা পরিকল্পনা থাকে। যখন সফল হই না। তখন তো চাপ থাকেই। চেষ্টা করব এবারের বিপিএলটা খুব আনন্দের সাথে খেলার। যেহেতু মাশরাফি ভাই আছে, গ্ল্যাডিয়েটরে দুইবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছি, তারপর কুমিল্লাতে তামিম ভাইয়ের সাথে চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। চ্যাম্পিয়ন সতীর্থ সবাই। আমার মনে হয় খুব আনন্দের মধ্যে দিয়ে যাবে। এই আনন্দটাকে যদি ক্রিকেট মাঠে আমি খুব সুন্দর করে উপভোগ করতে পারি, নিজের শতভাগ দিয়ে থাকতে পারি তাহলে এই বিপিএল আমার জন্য খুব স্মরণীয় হবে।’

এমআর/পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বঙ্গবন্ধু বিপিএল এর সর্বশেষ
  • বঙ্গবন্ধু বিপিএল এর পাঠক প্রিয়