• ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১
logo

‘আমার কাছে পুরো ব্যাপারটাই পাগলাটে মনে হচ্ছে’

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি নিউজ

  ৩১ মে ২০২৪, ১৮:৪৫
বাংলাদেশ
ছবি- সংগৃহীত

নিউইয়র্কের নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। এর আগে একই ভেন্যুতে আগামীকাল (শনিবার) ভারতের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। তাই আজ (শুক্রবার) পুরো স্টেডিয়ামটি পরিদর্শন করেন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত এবং রোহিত শর্মা।

একেবারে ফাঁকা একটি জায়গা দুই মাসের ব্যবধানে আস্ত একটি স্টেডিয়ামে রূপ নিয়েছে। নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচটিতেই খেলবে বাংলাদেশ। এর আগে নাসাউ মাঠের পুরো আবহ ও পিচ দেখে ‘অবিশ্বাস্য ও পাগলাটে’ মনে হচ্ছে টাইগার অধিনায়কের।

টাইগার অধিনায়ক বলেন, এটা অবিশ্বাস্য, আমার মনে হচ্ছে পুরোটাই পাগলাটে ব্যাপার। ইন্টারনেটে আমরা দেখেছিলাম, এখানে কিছুই ছিল না (কয়েক মাস আগে)। এখন এটাকে উপযুক্ত ক্রিকেট স্টেডিয়ামই মনে হচ্ছে, দারুণ লাগছে।

‘বিশেষ করে পূর্বপাশের গ্র্যান্ডস্ট্যান্ড এমন হবে আশা করিনি। মাঠও অনেক ভালো মনে হচ্ছে, সবমিলিয়ে এটি সত্যিকারের ক্রিকেট স্টেডিয়াম হয়ে উঠেছে।’

তিনি আরও বলেন, গোটা স্টেডিয়াম দেখে, উইকেট… আবহ, সবকিছুই খুব ভালো। আমার কাছে একদমই পাগলাটে মনে হচ্ছে। আমরা সবাই জানি, এখানে অনেক বেসবল ও বাস্কেটবল খেলা হয়। কিন্তু আমরা আশা করিনি, ক্রিকেট এখানে এরকম হবে। এখানে খেলার জন্য আমরা এখনই রোমাঞ্চ অনুভব করছি।’

সাধারণত যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে সেভাবে এখনও ক্রিকেট বিস্তৃতি লাভ না করায় নাসাউসহ বিশ্বকাপের ভেন্যু হয়ে ওঠার পথে চ্যালেঞ্জ ছিল উইকেট তৈরি করা। এত কম সময়ে উপযুক্ত উইকেট তৈরি করা যাবে না জেনেই ড্রপ-ইন উইকেট তৈরির পথ বেছে নেয় আইসিসি।

ফ্লোরিডায় ১০টি ড্রপ-ইন পিচ তৈরি করা হয়। অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেইড ওভালের প্রধান কিউরেটর ড্যামিয়েন হাউ এই প্রতিষ্ঠানেরও প্রধান। তার তত্ত্বাবধানেই তৈরি হয় পিচগুলো। পরে ২০টির বেশি সেমি-ট্রেইলার ট্রাকে ১ হাজার ১০০ মাইল পাড়ি দিয়ে পিচগুলো নিউইয়র্কে আনা হয়।

এবারের বিশ্বকাপে সর্বমোট ৫৫ ম্যাচের মধ্যে ১৬টি হবে আয়োজক যুক্তরাষ্ট্রে। এর মধ্যে ৮টিই হবে এই নাসাউ কাউন্টি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। গ্রুপ পর্বে ভারতের ৩টি ম্যাচ আছে এই মাঠে।

গত ১৫ মে স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করেন বিশ্বের দ্রুততম মানব ও এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দূত উসাইন বোল্ট। এরপর এখানে কিছু কমিউনিটি ক্রিকেট ম্যাচ ও ইভেন্ট আয়োজন করেছে আইসিসি।

আগামী ২ জুন ডালাসের প্রেইরি স্টেডিয়ামে হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ। এর তিনদিন পর (৫ জুন) ভারত–আয়ারল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের প্রথম কোনো ম্যাচ হবে নাসাউতে। আইসিসির সবচেয়ে উচ্চবিলাসী প্রকল্পগুলোর একটি নাসাউ স্টেডিয়াম।

মন্তব্য করুন

  • খেলা এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
সাকিবের অ্যাঞ্জেলেসের ম্যাচসহ টিভিতে আজকের খেলা
চাঁদপুরে আন্তর্জাতিক মাদকবিরোধী দিবস পালিত
উষ্ণতা ছড়াচ্ছেন মেহজাবীন
মালয়েশিয়ায় আন্তর্জাতিক মেশিনারি মেলায় বাংলাদেশের অংশগ্রহণ