Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ১৬ জানুয়ারি ২০২২, ২ মাঘ ১৪২৮

দুবাই থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক

  ৩০ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৮
আপডেট : ৩০ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪৩
discover

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

বিশ্বকাপে ব্যর্থতার ধাক্কায় হুশ ফিরছে নির্বাচকদের

ছবি- বিসিবি

দারুণ ছন্দ নিয়েই বিশ্বকাপ খেলতে এসেছিল বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়েকে তাদের মাটিতে ৩-০ ব্যবধানে হারানোর পর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে ৪-১ ব্যবধানে হারানো। এরপর নিউজিল্যান্ডকেও ৩-২ ব্যবধানে হারিয়ে দেওয়া। সবমিলে উড়ছিল বাংলাদেশ দল।

তবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডকে বড় ব্যবধানে হারানোর পরও সমালোচনা উঠেছিল মিরপুরের উইকেট নিয়ে। মন্থর আর টার্নিং উইকেট বানিয়ে দলগুলোকে হারিয়ে বিশ্বকাপে কতটা সফল হতে পারবে বাংলাদেশ এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল সাবেক ক্রিকেটার থেকে শুরু করে ক্রিকেট সংশ্লিষ্টরা।

যদিও সেসব আলোচনা-সমালোচনা পেছনে রেখে দারুণ কিছু সুখস্মৃতি নিয়ে ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতে পা রাখে দল। বিশ্বকাপের কোয়ালিফাইং বা প্রথম পর্বের খেলায় প্রথম ম্যাচেই স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে যায় বাংলাদেশ। এরপর ওমান ও পাপুয়া নিউগিনিকে হারিয়ে মূল পর্বে জায়গা করে নিলেও এরই মধ্যে টানা তিন ম্যাচে হেরে ছিটকে পড়েছে বিশ্বকাপ থেকে।

শারজায় শ্রীলঙ্কা আর আবুধাবিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যে ম্যাচগুলো খেলেছে বাংলাদেশ সেখানে উইকেট কোনোভাবেই মিরপুরের মতো মন্থর আর টার্নিং উইকেট ছিল না।

ঠিক এ কারণেই পেরে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন বলেছেন, ব্যাটিং ব্যর্থতা ভুগিয়েছে বাংলাদেশ দলকে। এর প্রধান কারণ বুঝতে বেশি সময় লাগার কথা না। মিরপুরের সেই মন্থর আর টার্নিং উইকেটে খেলাটাই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে।

“ব্যাটিংটা আসলেই আমাদের ভুগিয়েছে। আমরা কিন্তু ম্যাচগুলোতে জয়ের সুযোগ তৈরি করেছিলাম। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ভালো ব্যাটিং করেছিলাম, তাছাড়া বাকি ম্যাচগুলোতে আমরা ভালো ব্যাটিং করতে পারছি না। এই টুর্নামেন্টে ব্যাটিংয়ে যে প্রত্যাশা ছিল, আমরা তার কাছাকাছি যেতে পারিনি। বিশেষ করে পাওয়ার প্লেতে আমাদের ব্যাটিংয়ে অনেক উন্নতি করতে হবে, যদি আমরা টি-টোয়েন্টিতে ধারাবাহিকভাবে ভালো করতে চাই, বড় আসরে ভালো করতে চাই।”

টপ অর্ডার ব্যর্থ হয়েছে, সঙ্গে মিডল অর্ডারের ব্যাটাররাও। শেষ দিকের ব্যাটাররা নিজেদের প্রমাণ করতে পারেনি কোনও ম্যাচেই। দলে নেই কোনও পাওয়ার হিটারও। যে কিনা শেষ দিকে রান তুলতে পারবে দ্রুত।

এ নিয়ে হাবিবুল বাশার বলেছেন, “অবশ্যই ব্যাটিংয়ে আমাদের উন্নতি করতে হবে। আর নিচের দিকেও কিন্তু আমাদের পাওয়ার হিটার দরকার। অন্য দলগুলোতে এমন অনেকেই আছে, যারা ওভারে ১০ থেকে ১২ রান করে তুলতে পারে। এই জায়গায় আমাদের কিছু ঘাটতি আছে, এটা নিয়েও কাজ করতে হবে।”

বিশ্বকাপে এমন ব্যাটিং ভরাডুবির পর অবশ্য হুশ ফিরছে বিসিবির। হাবিবুল বাশার যেমনটা বলেছেন, মন্থর উইকেটে খেলার কারণেই মূলত পাওয়ার হিটার তৈরি হচ্ছে না।

“বিশ্বকাপের আগে একটা বড় বিষয় ছিল যে, দল হিসেবে বিশ্বকাপ খেলতে আসার আগে অনেকগুলো টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে এসেছি। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সিরিজের উইকেট নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। এখন আমাদের যা করতে হবে, ঘরোয়া যে টুর্নামেন্ট গুলো খেলি, সেখানে ব্যাটিং উইকেট তৈরি করা। আমরা যখন প্রচুর ম্যাচ খেলি, বিপিএল বা টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট খেলি, তখন একই উইকেটে বারবার খেলার জন্য অনেক সময় আমরা ভালো উইকেট পাই না। যার জন্য আমাদের পাওয়ার হিটার তৈরি হচ্ছে না।”

এমআর/এসকে

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS