logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ৯ মাঘ ১৪২৭

ফিলিপ হিউজ: সিক্সটি থ্রি নট আউট

Phillip Hughes, Fans in Mirpur hold up a banner mourning Phillip Hughes' death
২০১৪ সালের ২৮ নভেম্বর বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে টেস্ট চলাকালে ঢাকায় ক্রিকেট ভক্তরা শ্রদ্ধা জানান ফিল হিউজকে
বল মাথায় আঘাত হানলে কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার মাটিতে লুটিয়ে পড়েছিলেন। এমন অবস্থায় দ্রুত মাঠেই চিকিৎসা দেয়া হয়। সাড়া না দেয়ায় দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয় তাকে। হাসপাতালেও কোনও সাড়া দেননি তাই নিবিড় পরিচর্জা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখার সিদ্ধান্ত নেয় চিকিৎসারা। অবস্থার উন্নতি না হওয়া বলা হয় কোমায় চলে গেছেন তিনি। ৪৮ ঘণ্টা পার না হতেই আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসে চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে, চির বিদায় নিয়েছেন ফিলিপ হিউজ।

ঠিক ছয় বছর আগে এই দিনে (২৫ নভেম্বর) সাউথ অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মাঠে নেমেছিলেন বাম-হাতি এই ওপেনার। সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শেফিল্ড শিল্ডে প্রতিপক্ষ ছিল নিউ সাউথ ওয়েলস। বল হাতে এগিয়ে আসছিলেন সিন অ্যাবট। ডান-হাতি এই পেসারের বাউন্সটি মাথায় করে হিউজের। এর পরপরই অ্যাম্বুলেন্সে করে সিডনির সেন্ট ভিনসেন্টস হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।

গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের এই ব্যাটসম্যান টানা দুই দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করেন। শেষ পর্যন্ত ২০১৪ সালের ২৭ নভেম্বর ২৫ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান মারা যান। এই সংবাদে বিশ্বের নানা প্রান্তে ক্রীড়া পরিবারে শোকের ছায়া নেমে আসে।

অস্ট্রেলিয়ার নর্থ নিউ সাউথ ওয়েলসের ম্যাকভিলেতে ১৯৮৮ সালে এক কৃষক পরিবারের জন্ম নেন হিউজ। ২১ বছর বয়সে ২০০৯ সালে প্রথমবার ডাক পান জাতীয় দলে।

২০১৩ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে ২৬ টেস্ট খেলেন। ৩২.৬৫ গড়ে ১ হাজার ৫৩৫ রান তুলেন তিনি। নামের পাশে ছিল তিনটি শতক ও সাতটি অর্ধশতক। ছোট ক্যারিয়ারে ২৫টি ওয়ানডে ও একটি টি-টোয়েন্টিও খেলেছিলেন। ওয়ানডেতে মোট রান তুলেছিলেন ৮২৬। দুটি শতক ও চারটি অর্ধশতকও ছিল তার। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে নেমে মাত্র ১ রান করেছিলেন।

মাথায় যখন বলটি আঘাত হানে ১৬১ বলে ৬৩ রান তুলেছিলেন তিনি। ওই ম্যাচে তার ব্যাট থেকে এসেছিল নয়টি চার। অপরাজিত ওই ইনিংস যে জীবনের শেষ ইনিংস হবে সেটি তো আর জানা ছিল না তার।

ওয়াই

RTV Drama
RTVPLUS