• ঢাকা সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
logo

ডোনাল্ড লু’র সফর ঘিরে উৎসাহ নেই বিএনপির

আরটিভি নিউজ

  ১৩ মে ২০২৪, ১৪:১৮

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে গত বছর ডোনাল্ড লুর সফর ছিল বেশ আলোচনায়। সরকার পতনের এক দফা আন্দোলন করা বিএনপি বেশ চাঙা হয়ে ওঠেছিল। ভোট হয়ে যাওয়ার চার মাস পর যুক্তরাষ্ট্রের এই সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবার ঢাকায় আসছেন। তবে লু’র এবারের সফর ঘিরে উৎসাহ নেই বিএনপির। দলটির মহাসচিব বলছেন, কে এলো আর কে গেল, তা নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় নেই। তবে আওয়ামী লীগ বলছে, দুই দেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় নিতে এ সফর গুরুত্বপূর্ণ।

গত বছর লু’র ঢাকা সফর ছিল আলোচনার শীর্ষে। তার এবং ঢাকার মার্কিন রাষ্ট্রদূতের নানান পদক্ষেপ ও দৌড়াদৌড়ি ছিল চোখে পড়ার মতো। বাংলাদেশ সরকারের কাছে তাদের কর্মকাণ্ড ছিল ‘অযাচিত’। শেষমেশ বাংলাদেশে নির্বাচন হয়ে গেল এবং আওয়ামী লীগ সরকার আরেকবার ক্ষমতায় এলো।

সেই ডোনাল্ড লু যখন আবার ঢাকায় পা রাখতে যাচ্ছেন তখন স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, এটা কি সম্পর্ক পুনরুদ্ধারের মিশন? উত্তরে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘নতুন সরকার গঠিত হওয়ার পর লুর প্রথম সফর হবে এটা। তার আসার সেটাই উদ্দেশ্য নিশ্চয়ই। নির্বাচনের আগে যে চিত্র ছিল এখনকার চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। নতুন সরকার গঠিত হয়েছে। স্থিতিশীল একটি সরকার। সরকার রেগুলার কর্মকাণ্ড এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। সুতরাং সব দেশ এখন আমাদের সঙ্গে এনগেজড হতে চায়।’

লু’র এবারের সফর দুই দেশের সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে মনে করছে আওয়ামী লীগ। দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ডোনাল্ড লু বাংলাদেশের সরকারের সঙ্গে কথাবার্তা বলবেন। দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ক এগিয়ে নিতে তিনি আসবেন। বিএনপি মনে করেছে, আবার নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেবে কি না। এ ধরনের উদ্ভট চিন্তা করছে। এ রকম উদ্ভট চিন্তা তারা আগেও করেছিল।’

ডোনাল্ড লু’র এই সফর একেবারেই আমলে দিতে চায় না বিএনপি। যদিও নির্বাচনের আগে লু’র ঢাকা সফর নিয়ে সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত ছিল বিএনপির নেতারা। তবে এবার দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘কে আসলো আর কে গেলো তা নিয়ে মাথাঘামানোর সময় নেই। তিনি বলছেন তার দলের প্রধান শক্তি হলো জনগণ।’

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিদেশিদের কাছে বারবার ধর্না দিয়ে কোনো কিছুই করতে পারেনি বিএনপি। এজন্য লু’র ঢাকা সফর নিয়ে প্রকাশ্যে উচ্ছ্বাস দেখাচ্ছে না দলটি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক সুভাষ সিংহ রায় বলেন, নির্বাচনের দেশের জনগণের চেয়ে বিদেশিদের কাছেই বেশি গেছে বিএনপি। কারণ জনগণের মাঝে তাদের ভিত্তি নেই। বিএনপি বিভিন্ন দূতাবাসে রাত-বিরাতে ধর্না দিয়েছে। কিন্তু দেশে শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন হওয়া এবং বর্তমান সরকারের সাথে কাজ করার ঘোষণা দেওয়ায় বিএনপির মোহভঙ্গ হয়েছে। তাই প্রকাশ্যে লু’র সফর নিয়ে উচ্ছ্বাস দেখাচ্ছেনা বিএনপির নেতারা।

চীনা বংশোদ্ভূত আমেরিকান ডোনাল্ড লু ২০২১ সাল থেকে পররাষ্ট্র দপ্তরে দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। তার আগে তিনি কিরগিজস্তানে ও আলবেনিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ফরেইন সার্ভিসে যোগ দেওয়ার পর লু পাকিস্তানে এবং ভারতে যুক্তরাষ্ট্রের মিশনেও কাজ করেছিলেন। পাকিস্তানে দুই বছর আগে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে উৎখাতের ক্ষেত্রে লু’র বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল।

মন্তব্য করুন

daraz
  • রাজনীতি এর পাঠক প্রিয়
আরও পড়ুন
পাঁচবিবিতে বিএনপির ২ নেতাকে দল থেকে অব্যাহতি
বাড়ির গেটে‌ ‘ভোট চাহিয়া লজ্জা দিবেন না’ লেখা প্লাকার্ড
দেশ এখন মগের মুল্লুকে পরিণত হয়েছে : মির্জা ফখরুল
আত্মসমর্পণের পর কারাগারে বিএনপি নেতা ইশরাক
X
Fresh